শনিবার, ২৫ মে ২০২৪

শিরোনাম

আর্জেন্টিনার আসল বিশ্বকাপ শুরু হল

রবিবার, নভেম্বর ২৭, ২০২২

প্রিন্ট করুন

লুসাইল: সৌদি আরবের কাছে হারের পর গতকাল শনিবার (২৬ নভেম্বর) রাতে কাতার বিশ্বকাপে প্রথম জয়ের দেখা পায় আর্জেন্টিনা। নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে বাঁচা-মরার লড়াইয়ে আর্জেন্টিনা ২-০ গোলে হারায় মেক্সিকোকে। এ জয়ে বড় অবদান ছিল অধিনায়ক ও দলের সেরা তারকা লিওনেল মেসির। ম্যাচ শেষে বেশ উচ্ছসিত ছিলো মেসি। এ ম্যাচ থেকেই আর্জেন্টিনার আসল বিশ্বকাপ শুরু হয়েছে বলে জানান মেসি। 

টানা ৩৬ ম্যাচ অপরাজিত থেকে বিশ্বকাপ খেলতে এসেই বড়সড় ধাক্কা খায় আর্জেন্টিনা। সৌদি আরবের কাছে ২-১ গোল হেরে মহাচাপে পড়ে যায় মেসি-ডি মারিয়ারা। বিশ্বকাপে টিকে থাকতে হলে দ্বিতীয় ম্যাচে মেক্সিকোর বিপক্ষে জয় ছাড়া বিকল্প পথ ছিল না মেসিদের। 

মহাগুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে মেক্সিকোর বিপক্ষে জ্বলে উঠতে ভুল করেন নি মেসি। প্রথমার্ধ গোলশূন্যভাবে শেষ হওয়ার পর দ্বিতীয়ার্ধে মেসির প্রথম গোলেই ম্যাচে লিড নেয় আর্জেন্টিনা। ১-০ গোলের লিড নিয়ে ম্যাচ শেষ করার পথে ছিল আর্জেন্টিনা। ম্যাচের শেষ দিকে সতীর্থ মিডফিল্ডার এনজো ফার্নান্দেজকে দিয়ে গোল করিয়ে আর্জেন্টিনাকে ২-০ ব্যবধানে এগিয়ে দেন মেসি। শেষ পর্যন্ত ঐ স্কোরেই ম্যাচ জিতে নেয় আর্জেন্টিনা। ম্যাচ সেরা হন মেসি।  

মেক্সিকোকে হারানোর পর সাংবাদিকদের মেসি বলেন, ‘আজ থেকে আর্জেন্টিনার আসল বিশ্বকাপ শুরু হল। নিজেদের উপর বিশ্বাস ছিল। ফুটবলপ্রেমীদেরও বিশ্বাস রাখতে বলব। আমরা সেটাই করেছি, যেটা আমাদের করার দরকার ছিল। আমাদের সামনে কোন দ্বিতীয় পছন্দ ছিল না। আমাদের জিততেই হত। আমরা শুধু নিজেদের উপরই ভরসা রেখেছিলাম।’

মেক্সিকোর বিপক্ষে প্রথমার্ধে ধারহীন ফুটবল খেলে মেসির আর্জেন্টিনা। মাত্র একটি আক্রমণ করে তারা। প্রথমার্ধে দল হিসেবে তারা ভাল খেলতে পারেন নি, সেটি স্বীকার করেছেন মেসি। 

তিনি বলেন, ‘প্রথমার্ধে প্রত্যাশা মত খেলতে পারি নি আমরা। আমাদের অবশ্যই শুরু থেকে ভাল খেলা উচিত ছিল। দ্বিতীয়ার্ধে আমরা মাথা ঠান্ডা রেখে খেলার চেষ্টা করেছি। ভালো খেলে গোল পেয়েছি। আমরা যেভাবে খেলি, ঠিক সেভাবেই খেলতে পেরেছি।’

আগামী ৩০ নভেম্বর গ্রুপ পর্বে নিজেদের শেষ ম্যাচে দোহার ৯৭৪ স্টেডিয়ামে পোল্যান্ডের মুখোমুখি হবে আর্জেন্টিনা। এ ম্যাচ জিতলেই শেষ ষোলতে খেলবে আর্জেন্টিনা। হেরে গেলে গ্রুপ পর্ব থেকে বিশ্বকাপ শেষ করতে হবে মেসিদের। ড্র করলে, অন্যান্য ম্যাচের ফলাফল ও গোল পার্থক্যের দিকে চেয়ে থাকতে হবে আর্জেন্টিনাকে।