বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

শিরোনাম

আলমশাহ পাড়া কামিল মাদ্রাসার আলিম পরীক্ষার্থীদের জন্য দোয়া মাহফিল

বুধবার, অক্টোবর ১৯, ২০২২

প্রিন্ট করুন

রাঙ্গুনিয়া, চট্টগ্রাম: চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়ার ঐতিহ্যবাহী দীনি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান রাঙ্গুনিয়া আলমশাহ পাড়া কামিল এমএ মাদ্রাসার ২০২২ সালের আলিম পরীক্ষার্থীদের সাফলতা কামনায় দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার (১৯ অক্টোবর) সকালে মাদ্রাসার মিলনায়তনে এ দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।

মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মাওলানা মীর মো. জাহাঙ্গীর আলমের সভাপতিত্বে ও মো. আজগর আলীর সঞ্চালনায় এতে প্রধান অতিথি ছিলেন মাদ্রাসা গভর্নিং বডির সভাপতি গিয়াস উদ্দিন তালুকদার। বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক মো. জসিম উদ্দিন তালুকদার, চট্টগ্রাম পার্কভিউ হসপিটালের পরিচালক এটিএম রেজাউল করিম, মো. মোসলেম উদ্দিন, খোরশেদ আলম, শফিউল আলম, ইলিয়াছ বিন রশিদ, মো. শহিদুল্লাহ ও মো. বেলাল বিন সত্তার।

শিক্ষার্থীদের উজ্জল ভবিষ্যত কামনা করে গিয়াস উদ্দিন তালুকদার বলেন, ‘তোমরাই দেশের ভবিষ্যত। সামনে তোমরাই দেশের হাল ধরবে। সবাই ভাল করে পরীক্ষা দেবে। এখান থেকেই দৃঢ় মনোবল নিয়ে নিজেকে উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত করার প্রচেষ্টা চালিয়ে যেতে হবে। তোমরা মনুষ্যত্ব নিয়ে মানুষ হও। ভাল ফলাফল অর্জন করে বাবা-মায়ের মুখ উজ্জল করবে- এ দোয়া করি।’

জসিম উদ্দিন তালুকদার বলেন, ‘বুখারী ও মুসলিম শরীফের হাদীস ‘আদ্ দোয়াও মাখ্খুল ইবাদাত’ অর্থাৎ সব ইবাদতের মগজ হল দোয়া। যে কোন মাকসুদে গুরুত্বপূর্ণ কাজের প্রারম্ভে দোয়া করা সুন্নাত। তোমরা অপ্রয়োজনে সময় নষ্ট না করে পড়াশোনায় মনোযোগী হও। কারণ সুশিক্ষা অর্জনের মাধ্যমে মানুষের মত মানুষ হতে হলে জীবনের লক্ষ্য নিয়ে এগিয়ে যেতে হবে। মনে রাখতে হবে, মানুষ হতে হলে সুশিক্ষার কোন বিকল্প নাই। সুশিক্ষা জীবনের সাফল্য ও ভবিষ্যৎ কর্মজীবন সুন্দর করে। তাই তোমরা ভাল করে পড়াশোনা করবে, তাহলেই তোমাদের রেজাল্ট ভাল হবে।’

এটিএম রেজাউল করিম বলেন, ‘রাঙ্গুনিয়ার প্রাচীন ও সেরা মাদরাসাগুলোর মধ্যে আলমশাহ পাড়া কামিল মাদ্রাসা অন্যতম। আজকের শিক্ষার্থীরা ভাগ্যবান যে, এ মাদরাসায় পড়াশোনা করতে পেরেছো। এ মাদরাসার অনেক শিক্ষার্থী দেশের ভাল ভাল জায়গায় আছেন। তোমরা আলিম পরীক্ষায় অংশ নিয়ে দেশের ভাল মানুষ হবে- এ প্রত্যাশা করি।’

অনুষ্ঠান শেষে শিক্ষার্থীদের সফলতা কামনাসহ দেশ ও জাতির মুক্তি কামনায় দোয়া ও মোনাজাত পরিচালনা করা হয়। এ সময় মাদ্রাসার শিক্ষক-শিক্ষার্থী, অভিভাবক ও স্থানীয় ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন।