সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪

শিরোনাম

ইরানে আটক মার্কিন দুইটি নৌ ড্রোন

শনিবার, সেপ্টেম্বর ৩, ২০২২

প্রিন্ট করুন

তেহরান, ইরান: ইরানের একটি নৌ ফ্লোটিলা লোহিত সাগরে দুইটি আমেরিকান সামরিক চালকবিহীন গবেষণা ড্রোন জাহাজ আটক করেছে। ইরানের রাষ্ট্রীয় সংবাদ মাধ্যম শুক্রবার (২ সেপ্টেম্বর) এ তথ্য জানিয়েছে।

ইরানের নৌবাহিনীর ‘জামারান ডেস্ট্রয়ার বৃহস্পতিবার (১ সেপ্টেম্বর) লোহিত সাগরে সন্ত্রাসবিরোধী অভিযান চালানোর সময় আন্তর্জাতিক শিপিং রুটে বেশ কয়েকটি আমেরিকান সামরিক মনুষ্যবিহীন গবেষণা ড্রোন জাহাজের মুখোমুখি হয়েছিল।’ রাষ্ট্রীয় টিভিতে এ তথ্য জানানো হয়।

এতে বলা হয়, ‘ফ্লোটিলা একটি আমেরিকান ডেস্ট্রয়ারকে দুবার সতর্ক করার পরে সম্ভাব্য দুর্ঘটনা এড়াতে দুইটি ড্রোন জাহাজ জব্দ করেছে।’

‘আন্তর্জাতিক শিপিংয়ের উত্তরণ সুরক্ষিত করার পরে, ফ্লোটিলা দুইটি জাহাজকে একটি নিরাপদ এলাকায় ছেড়ে দিয়েছে।’ রাষ্ট্রীয় সম্প্রচার মাধ্যমের ফুটেজে একটি জাহাজ থেকে ইরানী বাহিনীর দেইটি মার্কিন ড্রোন জাহাজকে ছেড়ে দেয়ার দৃশ্য দেখানো হয়।

মার্কিন নৌবাহিনী জানিয়েছে যে, তাদের ড্রোন জাহাজগুলি আশেপাশের পরিবেশের ছবি তুলছিল ও ২০০ দিনেরও বেশি সময় ধরে দক্ষিণ লোহিত সাগরের আশেপাশে ছিল।

মার্কিন নৌবাহিনী এক বিবৃতিতে বলেছে, ‘১ সেপ্টেম্বর দুপুর দুইটার দিকে (স্থানীয় সময়) মার্কিন পঞ্চম নৌবহরটি সনাক্ত করে যে ইরানী জাহাজ দুইটি মানববিহীন ড্রোন জাহাজের কাছে আসছে ও তাদের পানি থেকে সরিয়ে নিচ্ছে।’

বিবৃতিতে আরো বলা হয়েছে, ‘কাছাকাছি থাকা দুইটি মার্কিন ডেস্ট্রয়ার ইউএসএস নিটজে এবং ইউএসএস ডেলবার্ট ডি. ব্লাক ‘পরিস্থিতি শান্ত করার জন্য ইরানী যুদ্ধজাহাজের সাথে যোগাযোগের জন্য ঘটনাস্থলে গেছে।’

বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘পরের দিন সকাল আটটার দিকে মার্কিন নৌবাহিনীর জাহাজগুলোকে ছেড়ে দেয়া হয়।’

এর আগে এক পৃথক ঘটনায়, মঙ্গলবার (৩০ আগস্ট) পেন্টাগন বলেছে যে, ‘একটি ইরানী জাহাজ উপসাগরে একটি আমেরিকান সামরিক ড্রোন জাহাজ জব্দ করেছে, পরে সেখানে মার্কিন নৌবাহিনীর একটি টহল জাহাজ ও হেলিকপ্টার মোতায়েন করার পরে এটি ছেড়ে দিয়েছে।’

ইউএস সেন্ট্রাল কমান্ডের পঞ্চম নৌবহর জানিয়েছে যে, ইরানের ইসলামিক বিপ্লবী গার্ড কর্পস নৌবাহিনীর একটি সহায়তা জাহাজ-শহীদ বাজিয়ার সোমবার (২৯ আগস্ট) গভীর রাতে সাত মিটার (২৩ ফুট) সেলড্রোন এক্সপোলারা মানবহীন সারফেস ভেসেল (ইউএসভি) টানতে দেখা গেছে।