সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪

শিরোনাম

ঋণ খেলাপী হয়ে পড়ার ঝুঁকি এড়াল যুক্তরাষ্ট্র

শনিবার, জুন ৩, ২০২৩

প্রিন্ট করুন

ওয়াশিংট ডিসি, যুক্তরাষ্ট্র: সিনেটে সরকারের ঋণসীমা তুলে নেয়ার দ্বিদলীয় প্রস্তাব পাসের মধ্য দিয়ে খেলাপি হওয়ার ঝুঁকি এড়াল পৃথিবীর বৃহত্তম অর্থনীতির দেশ যুক্তরাষ্ট্র। কংগ্রেসের বেঁধে দেয়া সীমা অনুযায়ী, বছরে ৩১ দশমিক চার ট্রিলিয়ন ডলার নিতে পারে যুক্তরাষ্ট্র সরকার। ওই সীমা আপাতত স্থগিত করার প্রস্তাব বৃহস্পতিবার (১ জুন) সিনেটের অনুমোদন পেয়েছে। আর এর মধ্য দিয়ে দেউলিয়া হওয়া ঠেকাল যুক্তরাষ্ট্র। খবর বিবিসির।

প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেছেন, তিনি দ্রুত ওই বিলে সই করবেন, যাতে তা আইনে পরিণত হয়।’

বুধবার (৩১ মে) যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেসের নিম্নকক্ষ প্রতিনিধি পরিষদে বিলটি পাস হওয়ার পর দিন ১০০ সদস্যের উচ্চকক্ষ সিনেটে প্রস্তাবটি ৬৩-৩৬ ভোটে পাস হয়।

যুক্তরাষ্ট্রের অর্থ মন্ত্রণালয় সতর্ক করে বলে আসছিল, কংগ্রেস যদি আগামী ৫ জুনের আগে সিদ্ধান্তে না আসতে পারে, তাহলে তারা ওই দিন থেকে আর কোনো সরকারি বিল পরিশোধ করতে পারবে না। যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল সরকারের ঋণ নেয়ার একটি সীমা নির্ধারিত থাকে। ঋণের পরিমাণ নির্ধারিত সর্বোচ্চ সীমায় পৌঁছে গেলে ঋণ পরিশোধের আগে আর ঋণ নেয়ার অনুমতি নেই সরকারের। সেটা না করতে পারলে নিজেদের খেলাপি ঘোষণা করার বিধান রয়েছে দেশটিতে। ওই সীমা তুলতে কংগ্রেসের রিপাবলিকান ও ডেমোক্র্যাট সদস্যদের মধ্যে কয়েক মাস ধরে টানাপড়েন চলছিল। শেষ পর্যন্ত দুই পক্ষের সমঝোতায় বিলটি পাস হয়।

প্রস্তাবটি পেশ করে সিনেটের সংখ্যাগরিষ্ঠ দলের নেতা ডেমোক্র্যাট চাক শুমার বলেন, ‘আজ রাতে আমরা খেলাপি হওয়া এড়াচ্ছি।’

কংগ্রেসের সময়োচিত পদক্ষেপের প্রশংসা করে বিবৃতিতে বাইডেন বলেন, ‘এ দ্বিদলীয় সমঝোতা আমাদের অর্থনীতি ও যুক্তরাষ্ট্রের জনগণের জন্য এক বড় জয়।’

প্রেসিডেন্ট বাইডেন ও রিপাবলিকান নেতা প্রতিনিধি পরিষদের স্পিকার কেভিন ম্যাকার্থি সমঝোতার মাধ্যমে বিলটি তৈরি করেন। পাস হওয়া বিল অনুযায়ী, ২০২৫ সালের জানুয়ারি পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্র সরকারের ঋণ সীমা স্থগিত থাকবে। আগামী দুই বছরের বাজেটে ব্যয় কমানো, করোনা তহবিলে থাকা অব্যবহৃত অর্থ অন্য খাতে ব্যবহার, জ্বালানি খাতে ব্যয় বৃদ্ধি ও দরিদ্রদের জন্য খাদ্য সহায়তার বিষয়ে বলা হয়েছে বিলটিতে।