মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪

শিরোনাম

এমএ আজিজের বক্তব্যের নিন্দা ও প্রতিবাদ জালালাবাদ এসোসিয়েশনের

বৃহস্পতিবার, মে ২৫, ২০২৩

প্রিন্ট করুন

নিউইয়র্ক, যুক্তরাষ্ট্র: জালালাবাদ এসোসিয়েশন অফ আমেরিকা ইনকের চলমান সংকট ঘিরে গেল ১৭ মে যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক থেকে প্রকাশিত একটি পত্রিকায় বাংলাদেশ সোসাইটির সাবেক সভাপতি এমএ আজিজের প্রকাশিত বক্তব্যের নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন এসোসিয়েশনের নেতারা।

গণ মাধ্যমে পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ‘জালালাবাদ এসোসিয়েশনের নামে তথাকথিত ভবন ক্রয় উপলক্ষে অসাংবিধানিকভাবে সংগঠনের ফান্ড আত্মসাতের অপচেষ্টার পক্ষে সাফাই গাইতে গিয়ে এমএ আজিজ যে বক্তব্য দিয়েছেন, তা কমিউনিটির মানুষকে বিভ্রান্ত করার অপচেষ্টা মাত্র। জালালাবাদ এসোসিয়েশনের ব্যাংক একাউন্ট থেকে তার একাউন্টে অসাংবিধানিকভাবে টাকা জমার বিষয়ে তিনি সময়ে সময়ে বিভিন্ন বক্তব্য দিয়ে আসছেন। তিনি প্রতিবাদী সংগঠকদের কটাক্ষ করেছেন। আমরা তার বক্তব্যের নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বলতে চাই, চোর, দুর্নীতিবাজ ও অসৎদের দ্বারা সমাজ নষ্ট হয়। আর যারা এদের সংস্পর্শে আসে, তারা কোন না কোনভাবে তাদের দ্বারা প্রভাবিত হয় ও কোন সৎ ব্যক্তি চোর দুর্নীতিবাজদের পক্ষে কথা বলতে পারে না।’

বিজ্ঞপ্তিতে নেতারা ক্ষোভ ও নিন্দা জানিয়ে আরো বলেন, ‘জালালাবাদ এসোসিয়েশন অব আমেরিকার গঠনতন্ত্র আর অভ্যন্তরীণ বিষয়ে বহিরাগত কারো হস্তক্ষেপ কাম্য নয়। ২০২০ সালে যে আড়াই লাখ ডলার জালালাবাদ এসোসিয়েশনের একাউন্ট থেকে আজিজ সাহেবের একাউন্টে গেল, তা এত দিন কেউ জানল না কেন? ২০২১ পার হয়ে ২০২২ সাল গেল, জালালাবাদ এসোসিয়েশনের সাধারণ সভা হল, কেউ বললও না, কেউ জানলও না এ টাকার খবর! নির্বাচন হল, ক্ষমতা হস্তান্তর হল, কেউ বললও না জানলও না এ খবর! নতুন কমিঠি দায়িত্ব নিয়ে জানল, পুরনো একাউন্ট বন্ধ করে নতুন একাউন্ট খোলে হিসাব দেয়া হয়েছে। তদন্ত করে জানা গেল, এ আড়াই লাখ ডলার বিষয়ে। ধরা পরে, এখন নতুন নাটক সাজানো হচ্ছে। সচেতন জালালাবাদ বাসী এর বিচার করবে।’