রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪

শিরোনাম

ক্ষেপণাস্ত্র ছোড়া/উত্তর কোরিয়ার বিপক্ষে একাট্টা যুক্তরাষ্ট্র-দক্ষিণ কোরিয়া

বুধবার, অক্টোবর ৫, ২০২২

প্রিন্ট করুন

সিউল. দক্ষিণ কোরিয়া: জাপানের ওপর দিয়ে উত্তর কোরিয়ার ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র ছোঁড়ার পাল্টা পদক্ষেপ হিসেবে যৌথ ক্ষেপণাস্ত্র মহড়া চালিয়েছে দক্ষিণ কোরিয়া ও যুক্তরাষ্ট্র।

উত্তর কোরিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণের পরপরই দক্ষিণ কোরিয়ার রাজধানী সিউলে সামরিক মহড়া শুরু করে দেশ দুইটি। এতে স্বল্পপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপের পাশাপাশি যুদ্ধবিমান নিয়েও মহড়া চালানো হয়। যুদ্ধবিমান থেকে সমুদ্রে নিক্ষেপ করা হয় বোমা। এ দিকে, দক্ষিণ কোরিয়ার একটি ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণের পরই বিধ্বস্ত হয় বলে জানিয়েছে সিউল। তবে এতে কোন হতাহতের খবর পাওয়া যায় নি।

এর আগে মঙ্গলবার (৪ অক্টোবর) ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালায় উত্তর কোরিয়া। দশ দিনের মধ্যে পঞ্চম ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা এটি। এ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।

এ নিয়ে গত দশ দিনে পাঁচটি ক্ষপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালালো উত্তর কোরিয়া।

জাপানের সরকারি কর্মকর্তারা বলছেন, ‘মঙ্গলবার (৪ অক্টোবর) সকালে ছোড়া ক্ষেপণাস্ত্রটি প্রশান্ত মহাসাগরের প্রায় তিন হাজার কিলোমিটার গভীরে পড়েছে। উত্তর কোরিয়ার উত্তরাঞ্চল থেকে ছোড়ার ২২ মিনিট পর প্রশান্ত মহাসাগরে পড়ে এটি। ২০১৭ সালের পর থেকে জাপানের ওপর দিয়ে উত্তর কোরিয়ার ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপের প্রথম ঘটনা এটি।’

জাপানের উত্তরাঞ্চলের ওপর দিয়ে মাঝারিপাল্লার সন্দেহভাজন ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রটি যাওয়ার সময় হোক্কাইদো দ্বীপের জনগণকে সতর্ক থাকতে বলে জাপান সরকার। বাসিন্দাদের ঘরের ভেতরে অথবা ভবনের বেজমেন্টে চলে যাওয়ার নির্দেশ দেয়া হয়। সাময়িকভাবে কিছু ট্রেনের যাত্রাও স্থগিত রাখা হয়। তবে এ ঘটনায় কেউ হতাহত হওয়ার খবর পাওয়া যায় নি।

উত্তর কোরিয়ার এমন আচরণে ক্ষিপ্ত হয়েছে জাপান। জাপানের পক্ষ থেকে বলা হয়, ‘উত্তর কোরিয়ার একের পর এক ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ জাপানের পাশাপাশি আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক শান্তি নষ্ট করছে।’

একে উসকানিমূলক ও বর্বর উল্লেখ করে পিয়ংইয়ংয়ের এমন কর্মকাণ্ডের নিন্দা জানিয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী ফুমিও কিশিদা।

জাপানের পাশাপাশি এমন কর্মকাণ্ড মেনে নেয়া হবে না জানিয়ে উত্তর কোরিয়াকে এর মূল্য দিতে হবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছে দক্ষিণ কোরিয়াও। আরো কঠোর নিষেধাজ্ঞাসহ বিভিন্ন পদক্ষেপ নেয়া হবে বলে জানিয়েছে সিউল।

কোন ধরনের আলোচনা বা পূর্বসতর্কতা ছাড়া অন্য কোন দেশের ওপর দিয়ে ক্ষেপণাস্ত্র ছোড়া আন্তর্জাতিক নিয়মের লঙ্ঘন। এ বছর উত্তর কোরিয়া অন্তত ২০টি ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালিয়েছে, যা নিয়ে দিন দিন প্রতিবেশী দেশগুলোর মধ্যে বাড়ছে উদ্বেগ।