মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪

শিরোনাম

চট্টগ্রাম গ্রুপ থিয়েটার ফোরামের বর্ষামঙ্গল নাট্য সম্ভারের চতুর্থ দিনে ‘চে’ মঞ্চস্থ

বৃহস্পতিবার, জুন ২২, ২০২৩

প্রিন্ট করুন

চট্টগ্রাম: চট্টগ্রাম গ্রুপ থিয়েটার ফোরামের উদ্যোগে চট্টগ্রাম জেলা শিল্পকলা একাডেমির মিলনায়তনে চলছে সপ্তাহব্যাপী ‘বর্ষামঙ্গল নাট্য সম্ভার ২০২৩’। নাট্য সম্ভারের চতুর্থ দিনে অ্যাঁভাগার্ড পরিবেশন করে সুমন টিংকু রচিত ও নির্দেশিত নাটক ’চে’। লেলিনের সোভিয়েত ইউনিয়ন পুঁজিবাদ তার ষড়যন্ত্রী গর্বাচেভের হাত ধরে ‘পেরেস্ত্রৈকা’ নামক মারণাস্ত্র প্রয়োগ করেছিল। তারই পরবর্তী পদক্ষেপ হিসেবে বার্লিন দেয়াল ভাঙা হয়েছিল, লেলিনের মূর্তিও নির্মমভাবে গুঁড়িয়ে দেয়া হয়েছে। মানবতার সব পতাকা নামিয়ে সাম্রাজ্যবাদ আমাদের ষড়রিপুকে ভোগবাদের জাল দিয়ে ক্রমশ বন্দী করে নিয়েছে।

ধনী-গরীবের বেষম্য প্রকট হয়েছে, ব্যাংক লুটেরাগণ আরো অদম্য হয়েছে, বৈশ্বিক মোড়লীপনা এককেন্দ্রিক হয়েছে। বিভেদের দেয়াল উঁচু হতে হতে হাত ছাড়িয়ে যাওয়ার আগেই তাকে থামানো প্রয়োজন। শুধু স্বার্থমগ্ন হয়ে বেঁচে থাকার মন্ত্রে একাগ্র হওয়ার যে দীক্ষা পুঁজিবাদ শেখায়, তাকে এখনই রোধ করা প্রয়োজন। নয়তো, একটা মানবতাহীন ভোগসর্বস্ব পৃথিবীতে আমাদের লোভী নেকড়ের জীবন কাটিয়ে দিতে হবে। আমাদের মনে হয়েছে, মনের দরজায় টোকা দিতে পারা একজন সন্তকে এ মুহূর্তে স্মরণ করা খুব প্রয়োজন। তিনি আর কেউ নন, আর্নেস্তো চে গাভারা। এ বিশ্ব নায়ককে শ্রদ্ধায় স্মরণ ও ‘চে’র অমূল্য আত্মত্যাগের যে মহিমা পুঁজিবাদ তার ভোগবাদী মায়াজালে গোপন রাখতে চায়, তার প্রকাশ প্রজন্মের কাছে উন্মুক্ত করে দেয়াটা কর্তব্য । লোভ ও উচ্চাকাঙ্খা সীমানা পেরুনো সেই মহানায়কের জীবনের পাতাটাকে উল্টেপাল্টে দেখা, তার স্বপ্নটাকে নেড়েচেড়ে যদি তাঁর মননের মন্ত্রটাকে পুনরুজ্জীবিত করা যায়? তার উচ্চারণ যদি ফের ধ্বনিত হয় প্রজন্মের কণ্ঠে? যদি তার স্বপ্নের বিচ্ছুরণ আমাদের চোখেও আঁকে মুক্তি রেখা? প্রজন্ম তবে মানবতাবাদী হোক, ‘আমি’র নিগড় ছিঁঢ়ে এ বিশ্বকে সবার জন্য অভিন্ন ও সমান করার প্রত্যয়ে মাদল হাতে জীবনের গান গেয়ে পৃথিবীর পথ মুখরিত করে তোলার আহবান নিয়ে ‘চে’ নাটক।

নাটকটিতে অভিনয় করেন সুমন টিংকু, মো. আতিকুর রহমান, মো. পারভেজ, রেহেনা কবীর, নাহিদ আফরোজ, রহিমা খাতুন লুনা, সুরাইয়া ইয়াসমিন, শামসুল কবীর লিটন, নুহাশ আলম, তাসনিমুল হাসান, ফরহাদ আহমেদ, সাফাত জামিল, মাহমুদুল ইসলাম অনির, জানে আলম, আরাফাত লোকমান হাকিম, গাফির ইবতিহাজ আয়মান, ঐতিহ্য নিজাম সূচক, জাওয়াদ জারীফ, ইলমা আইলিন মাতৃকা, আঙিনা কবীর, আরিয়া কবীর, স্বপ্নময় মোহর।

শুক্রবার (২৩ জুন) সন্ধ্যা সাতটায় একই নাটক পূনমঞ্চায়ন হবে। শনিবার (২৪ জুন) নাট্যজন আহাম্মদ কবীরের স্মরণ সভা ও পণ্ডিত বিহার বিশ্ববিদ্যালয়: অজানার সন্ধান-নবতর আকাঙ্খা চর্যাভিত্তিক নাট্যক্রিয়া মঞ্চস্থ হবে নাট্যাধারের পরিবেশনায়।