সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪

শিরোনাম

তাইওয়ানের কাছে ১.১ বিলিয়ন ডলারের অস্ত্র বিক্রি করছে যুক্তরাষ্ট্র

শনিবার, সেপ্টেম্বর ৩, ২০২২

প্রিন্ট করুন

ডেস্ক রিপোর্ট: তাইওয়ানের কাছে এক দশমিক এক বিলিয়ন ডলারের (১১০ কোটি ডলার) অস্ত্র বিক্রির অনুমোদন দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। এ খবরে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া দেখিয়ে চীন বলছে, ‘হয় চুক্তি প্রত্যাহার কর, না হয় ‘পাল্টা পদক্ষেপের’ মুখোমুখি হও।’ তবে অস্ত্র বিক্রির অনুমোদন দেয়ায় যুক্তরাষ্ট্রকে ধন্যবাদ জানিয়েছে তাইওয়ানের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়। খবর বিবিসি ও আলজাজিরার।

এমনিতেই ওয়াশিংটন ও বেইজিংয়ের মধ্যে তাইওয়ান নিয়ে উত্তেজনা চরমে। এমন পরিস্থিতিতে পেন্টাগনের এ অস্ত্র বিক্রির ‍অনুমোদনের ঘোষণা পরিস্থিতিকে আরো জটিল করে তুলবে।

পেন্টাগনের ডিফেন্স সিকিউরিটি করপোরেশন অ্যাজেন্সি শুক্রবার (২ সেপ্টেম্বর) জানায়, এ প্যাকেজের মধ্যে ৬০টি অ্যান্টি-শিপ ক্ষেপণাস্ত্র, ১০০টি এয়ার-টু-এয়ার ক্ষেপণাস্ত্র ও একটি নজরদারি রাডারের জন্য সহযোগিতামূলক বিষয় রয়েছে।

অস্ত্র বিক্রির অনুমোদন দেয়া যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক মুখপাত্র বলেন, ‘এ প্যাকেজ তাইওয়ানের নিরাপত্তার জন্য জরুরি ছিল।’

‘প্রস্তাবিত এ অস্ত্র বিক্রির বিষয়টি তাইওয়ানের সশস্ত্র বাহিনীর আধুনিকায়ন ও তার প্রতিরক্ষা সক্ষমতা বজায় রাখার জন্য একটি নিয়মিত কার্যক্রমের অংশ।’ যোগ করেন তিনি।

এ দিকে, চীন শুক্রবার (২ সেপ্টেম্বর০ এ অস্ত্র বিক্রির সিদ্ধান্ত যুক্তরাষ্ট্রকে ‘তাৎক্ষণিকভাবে প্রত্যাহারের’ আহবান জানিয়েছে।

ওয়াশিংটনে থাকা চীনা দূতাবাসের মুখপাত্র লিউ পঙইউ বলেন, ‘চীন প্রতিক্রিয়া দেখাবে।’

তিনি বলেন, ‘পরিস্থিতির আলোকে চীন যৌক্তিক ও প্রয়োজনীয় পাল্টা পদক্ষেপ নেবে।’

তাইওয়ানের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে বলছে, ‘চীনের সাম্প্রতিক ‘উসকানিমূলক’ কর্মকাণ্ড গুরুতর হুমকি তৈরি করেছে ও যুক্তরাষ্ট্রের অস্ত্র বিক্রি চীনের পক্ষ থেকে আসা সামরিক চাপ মোকাবিলায় সাহায্য করবে।’

যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিনিধি পরিষদের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসির তাইওয়ান সফরের পর থেকেই ওয়াশিংটন-বেইজিংয়ের সম্পর্কে উত্তেজনা বিরাজ করছে। মার্কিন স্পিকার তাইপে সফরের প্রতিক্রিয়া তাইওয়ানের চারপাশে সামরিক মহড়া চালায় চীন। চীন এ দ্বীপকে নিজেদের অংশ বলেই মনে করে। যদিও তাইওয়ান একটি স্বশাসিত পৃথক দ্বীপরাষ্ট্র।