সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০২৪

শিরোনাম

দক্ষিণ চীন সাগরে যুক্তরাষ্ট্র ও চীনের ‘পাল্টাপাল্টি’ মহড়া, তীব্র উত্তেজনা

বৃহস্পতিবার, জানুয়ারী ৪, ২০২৪

প্রিন্ট করুন

চীন: দক্ষিণ চীন সাগরে ফিলিপিন্সের সাথে যৌথ সামুদ্রিক মহড়া শুরু করেছে যুক্তরাষ্ট্র। ইতিমধ্যেই ওই অঞ্চলে মহড়া চালিয়েছে চীনের নৌ ও বিমান বাহিনী। এতে করে অঞ্চলটিতে উত্তেজনা চরমে পৌঁছেছে। খবর ব্লুমবার্গ।

বুধবার (৩ জানুয়ারি) ফিলিপিন্স ও যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক বাহিনী দক্ষিণ চীন সাগরে তাদের সামুদ্রিক মহড়া শুরু করেছে। দুই মাসেরও কম সময়ে এ নিয়ে দ্বিতীয় মহড়া চালাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র-ফিলিপিন্স।

মহড়ায় ফিলিপিন্স চারটি নৌযান, একটি মাল্টিরোল হেলিকপ্টার ও একটি সাবমেরিন-বিধ্বংসী হেলিকপ্টার মোতায়েন করেছে। আর এই মহড়ায় যুক্তরাষ্ট্রের একটি বিমানবাহী রণতরী, একটি ক্রুজার, দুটি বিধ্বংসী যুদ্ধজাহাজ ও একাধিক যুদ্ধবিমান অংশ নিয়েছে।

অন্য দিকে, পিপলস লিবারেশন আর্মি (পিএলএ) সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট করে জানিয়েছে, চীনের সার্বভৌমত্ব, নিরাপত্তা, সামুদ্রিক অধিকার ও স্বার্থ দৃঢ়ভাবে রক্ষা করার লক্ষ্যে বুধ (৩ জানুয়ারি) ও বৃহস্পতিবার (৪ জানুয়ারি) তাদের ‘নিয়মিত মহড়া’ চালানো হয়েছে।

পিএলএ আরো বলেছে, ‘তাদের বাহিনী কঠোর সতর্কতায় (হাই অ্যালার্ট) আছে। এছাড়াও, দক্ষিণ চীন সাগরে হওয়া যে কোন সামরিক হামলা প্রতিরোধের জন্যও সম্পূর্ণভাবে সতর্ক ও প্রস্তুত আছে তারা।’

তবে, এই মহড়া কোথায় ও এতে কী ধরনের বিমান ও জাহাজ ব্যবহার করা হয়েছে, সে ব্যাপারে বিস্তারিত কোন তথ্য জানায়নি পিলএ।

সম্প্রতি চীন ও ফিলিপিন্সের মধ্যে সামুদ্রিক উত্তেজনা বৃদ্ধি পেয়েছে। চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রী ওয়াং ই গেল মাসে সতর্ক করে বলেছেন, ‘বেইজিং ও ম্যানিলার মধ্যে সম্পর্ক ‘গুরুতর সমস্যার’ মুখোমুখি হচ্ছে।’

বলে রাখা ভাল, দক্ষিণ চীন সাগরের ৯০ শতাংশ এলাকার মালিকানা দাবি করে আসছে চীন। যদিও ২০১৬ সালেই আন্তর্জাতিক একটি ট্রাইব্যুনাল চীনের এমন দাবিকে অবৈধ বলে রায় দিয়েছে। তবে, এ রায় মানতে অস্বীকৃতি জানিয়েছে বেইজিং। বরং, গত কয়েক বছরে বিতর্কিত অঞ্চলগুলোতে চীন তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছে।