মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪

শিরোনাম

দুই অঙ্কের প্রবৃদ্ধি নিয়ে শক্তিশালী অবস্থানে বাংলালিংক

বুধবার, মার্চ ২২, ২০২৩

প্রিন্ট করুন

ঢাকা: ২০২২ সালের বার্ষিক আয়ে দুই অঙ্কের প্রবৃদ্ধি অর্জন করেছে বেসরকারি মোবাইল অপারেটর কোম্পানি বাংলালিংক। এ অর্জনে ভূমিকা রেখেছে ফোরজি নেটওয়ার্কে নিয়মিত বিনিয়োগ; যার ফলে বাংলালিংকের কাভারেজ ও নেটওয়ার্কের গতিও বৃদ্ধি পেয়েছে। এছাড়া, বাংলালিংকের অভিনব ও আরো উন্নত ডিজিটাল সেবা এর গ্রাহক সংখ্যা বৃদ্ধিতে অবদান রেখেছে। বাংলালিংকের স্বত্বাধিকারী প্রতিষ্ঠান ভিওনের সম্প্রতি প্রকাশিত ২০২২ সালের আয়ের প্রতিবেদন অনুসারে, ২০২২ সালে বাংলালিংকের আয় পূর্ববর্তী বছরের তুলনায় ১২ দশমিক এক শতাংশ বেড়ে পাঁচ হাজার ৩৭৪ কোটিতে দাঁড়ায়। টানা তিন প্রান্তিকে দুই অঙ্কের প্রবৃদ্ধি আয় বৃদ্ধিতে সহায়তা করেছে। বাংলালিংকের সেবা থেকে বার্ষিক আয় ও ডেটা থেকে বার্ষিক আয়ও ২০২২ সালে যথাক্রমে ১২ দশমিক তিন শতাংশ ও ২৬ দশমিক ছয় শতাংশ বেড়েছে।

সোমবার (২০ মার্চ) সংবাদ সম্মেলনে বাংলালিংকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এরিক অস এসব তথ্য জানান। এতে উপস্থিত ছিলেন বাংলালিংক বোর্ডের চেয়ারম্যান কান তেরজিওগ্লু, বাংলালিংকের চিফ ফাইন্যান্সিয়াল অফিসার চেম ভেলিপাসাওগ্লু, চিফ কমার্শিয়াল অফিসার উপাঙ্গ দত্ত ও চিফ কর্পোরেট অ্যান্ড রেগুলেটরি অ্যাফেয়ার্স অফিসার তাইমুর রহমান।

ডিজিটাল বিনোদনের প্ল্যাটফর্ম টফি দেশে ডিজিটাল সেবায় বাংলালিংককে শীর্ষ অবস্থান নিতে বিশেষ ভূমিকা পালন করেছে। ২০২২ সালের শেষে টফির সক্রিয় মাসিক ব্যবহারকারীর সংখ্যা দুই কোটি ১২ লাখে এসে দাঁড়ায়। ফিফা ওয়ার্ল্ড কাপ কাতার ২০২২ এর এক্সক্লুসিভ লাইভস্ট্রিমিংয়ের কারণে এর জনপ্রিয়তা উল্লেখযোগ্যভাবে বেড়েছে। গত বছর টফির দৈনিক সক্রিয় ব্যবহারকারীর সংখ্যা ছিলো ৫২ লাখ, যা পূর্ববতী বছরের তুলনায় পাঁচ গুণ বেশি। বাংলালিংকের সেলফ কেয়ার মোবাইল অ্যাপ মাইবিএল সুপার অ্যাপও বছর শেষে ৫৭ লাখ ব্যবহারকারী নিয়ে ভালে ফলাফল অব্যাহত রেখেছে।

গত বছরের চতুর্থ প্রান্তিকে বাংলালিংকের গ্রাহক সংখ্যা পূর্ববর্তী বছরের একই প্রান্তিকের তুলনায় সাত দশমিক এক শতাংশ বৃদ্ধি পায়। দেশব্যাপী নেটওয়ার্ক সম্প্রসারণ ও প্রযুক্তিগত অগ্রগতির কারণে বিশেষ এ অর্জন সম্ভব হয়েছে।

বাংলালিংক গত বছর নেটওয়ার্ক প্রায় ৪০ শতাংশ সম্প্রসারণ করে, যার ফলে এর মোট সাইটের সংখ্যা ১৪ হাজার ১০০ পার করে। উন্নত নেটওয়ার্ক ও ডিজিটাল সেবার জন্য বাংলালিংক সম্প্রতি চার কোটি গ্রাহক অর্জনেও সক্ষম হয়। তিন বছরে টানা ষষ্ঠ বারের মত দেশের দ্রুততম মোবাইল নেটওয়ার্ক হিসেবে ওকলা স্পিডটেস্ট অ্যাওয়ার্ড অর্জনের পাশাপাশি বাংলালিংক ২০২২ সালে দেশের অপারেটরদের মধ্যে সর্বোচ্চ সংখ্যক গ্রাহক অর্জন করে।

কান তেরজিওগ্লু বলেন, ‘বাংলাদেশে ভিওনের ধারাবাহিক বিনিয়োগের সুস্পষ্ট ফলাফল দেখে আমি আনন্দিত। টানা তিন প্রান্তিকে বাংলালিংকের দুই অঙ্কের প্রবৃদ্ধি গ্রাহকদের আস্থা বৃদ্ধিতে আমাদের সাফল্যের প্রমাণ। ডিজিটাল অপারেটর ভিত্তিক কৌশলের একটি অংশ হিসেবে বাংলালিংক প্রবৃদ্ধির হার বাড়িয়ে স্মার্ট বাংলাদেশের বাস্তবায়নে ভূমিকা রাখতে এগিয়ে যাচ্ছে। বাংলাদেশের ক্রমবর্ধমান ডিজিটাল মার্কেটে ধারাবাহিকভাবে উন্নত ডিজিটাল সেবা দিয়ে এ লক্ষ্য বাস্তবায়ন করবে বাংলালিংক।’

এরিক অস বলেন, ‘পুরো দেশে বিস্তৃত অপারেটর বাংলালিংক ২০২২ সালে একটি ডিজিটাল পাওয়ার হাউস হিসেবে সব ক্ষেত্রে ভাল ফলাফল করে প্রবৃদ্ধির একটি নতুন যুগের সূচনা করেছে। বছরটিতে আমাদের প্রবৃদ্ধির হার টেলিকম খাতের মোট প্রবৃদ্ধির হারের দ্বিগুণ। দ্রুততম ফোরজি নেটওয়ার্ক সম্প্রসারিত করে ও দেশের প্রতিটি কোণে উন্নত ডিজিটাল সেবা নিয়ে আমরা সত্যিকারের দেশব্যাপী বিস্তৃত অপারেটরের মর্যাদা অর্জন করেছি। নেটওয়ার্কের সর্বোচ্চ গতি ও দেশব্যাপী বিস্তৃতি নিয়ে আমরা এ বছর গ্রাহকদের সেরা মানের সংযোগ দিতে প্রস্তুত।’