মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪

শিরোনাম

নিউইয়র্কস্থ জাতিসংঘে বাংলাদেশ স্থায়ী মিশনে ‘স্বাধীনতা দিবস’ উদযাপন

সোমবার, মার্চ ২৭, ২০২৩

প্রিন্ট করুন

নিউইয়র্ক: যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কস্থ জাতিসংঘে বাংলাদেশ স্থায়ী মিশনে প্রবাসী বাংলাদেশীদের সাথে নিয়ে রোববার (২৬ মার্চ) বিকালে স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস-২০২৩ উদযাপন করা হয়েছে। মিশনের বঙ্গবন্ধু মিলনায়তনে স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উদযাপনের এ আয়োজন যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী বাংলাদেশীদের মাঝে ব্যাপক সাড়া ফেলে। মিলনায়তন পরিণত হয় যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষের মিলনমেলায়।

এতে ইফতার মাহফিলের আয়োজন করা হয় ও মুক্তিযুদ্ধের শহীদদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করে মোনাজাত পরিচালনা করা হয়। জাতীয় পতাকা উত্তোলন ও সমবেত কন্ঠে জাতীয় সংগীত পরিবেশন করা হয় ও বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়।

অনুষ্ঠানে জাতিসংঘে নিযুক্ত বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি ও রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ আব্দুল মুহিত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তার পরিবারের শহীদ সব সদস্য, মুক্তিযুদ্ধের ৩০ লাখ শহীদ, দুই লাখ মা-বোনসহ সব বীর মুক্তিযোদ্ধার শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করেন।

তিনি জাতিসংঘের বহুপাক্ষিক কূটনীতিতে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশের অভূতপূর্ব অগ্রগতি ও অসামান্য সাফল্যগাঁথা তুলে ধরেন।

মুহিত বলেন, ‘বাংলাদেশ আজ আন্তর্জাতিক অঙ্গনে একটি গুরুত্বপূর্ণ ও বিশ্বস্ত নাম। আজ বিশ্ব শান্তিরক্ষা, জলবায়ু পরিবর্তন, টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্য, বিশ্বস্বাস্থ্য, নারীর ক্ষমতায়নসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে নেতৃত্বস্থানীয় ভূমিকা পালন করছে। ২০২৩ সালে বাংলাদেশ ইউএনডিপি, ইউএনএফপিএ, ইউএনঅপসসহ জাতিসংঘের বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ প্রক্রিয়ায় নেতৃত্ব দিয়েছে। সদ্য সমাপ্ত জাতিসংঘ পানি সম্মেলনের সহ-সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছে। জাতিসংঘের নিরাপত্তা ও সাধারণ পরিষদে অনেকগুলো গুরুত্বপূর্ণ রেজ্যুলেশন পেশ করার করার ক্ষেত্রে অগ্রণী ভূমিকা রেখেছে। ২০২২ সালে জাতিসংঘ সদর দপ্তরে বাংলাদেশ ইউএন উইমেন নির্বাহী বোর্ড, পিসবিল্ডিং কমিশনসহ বেশ কিছু সংস্থা পরিচালনায় সভাপতির গুরু দায়িত্ব পালন করেছে।’

অনুষ্ঠানে অংশ নেন প্রবাসী বীর মুক্তিযোদ্ধা, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ ও এর সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ, বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ, কবি, শিল্পী, সাংবাদিক, সাহিত্যিকসহসহ বরেণ্য প্রবাসী বাংলাদেশীগণ। মিশন আয়োজিত স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবসের অনুষ্ঠানের প্রশংসা করেন তারা।