সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০২৪

শিরোনাম

নিউইয়র্ক সিটিতে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপিত

বুধবার, ফেব্রুয়ারী ২১, ২০২৪

প্রিন্ট করুন

নিউইয়র্ক সিটি, যুক্তরাষ্ট্র: যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক সিটির জাতিসংঘের সদর দফতরের সামনে মুক্তধারা ফাউন্ডেশন ও বাঙালির চেতনা মঞ্চের যৌথ উদ্যোগে মাতৃভাষা ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত হয়েছে। বাংলাদেশ সময় ২১ ফেব্রুয়ারি রাত ১২টা এক মিনিটের সাথে মিল রেখে নিউইয়র্ক সময় ২০ ফেব্রুয়ারি দুপুর একটায় ভাষা শহিদদের স্মৃতির প্রতি ফুলেল শ্রদ্ধা জানানো হয়।

জাতিসংঘের সদর দপ্তরের সামনে অস্থায়ীভাবে নির্মিত শহিদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণের মাধ্যমে প্রতীক, জয় ও পায়েল- এ তিন শিশু সর্বপ্রথম ভাষা শহিদদের সামৃতির প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করে। এরপর জাতিসংঘে নিযুক্ত বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি মোহাম্মদ আব্দুল মুহিত, কন্সাল জেনারেল মো. নাজমুল হুদা এবং যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, সংস্কৃতিক সংগঠনের নেতারা শহিদ মিনারের বেদীতে পুষ্পমাল্য অর্পণের মাধ্যমে ভাষা শহিদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানান। এরপর অনুষ্ঠিত হয় আলোচনা সভা।

মুক্তধারা ফাউন্ডেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) বিশ্বজিত সাহার সঞ্চালনায় সভায় জাতিসংঘে বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি আব্দুল মুহিত বলেন, ‘বাংলাদেশের ভাষা শহিদদের আত্মদানের বিনিময়ে আজ পৃথিবীব্যাপী পালিত হচ্ছে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস। বাংলা ভাষাসহ পৃথিবীর অন্যান্য ভাষা সংরক্ষণ ও উত্তরণে আমাদের সর্বাগ্রে ভূমিকা রাখতে হবে।’

নয়া প্রজন্মকে নিয়ে গেল ৩৩ বছর ধরে জাতিসংঘের সদর দফতরের সামনে ভাষা দিবস পালনের গৌরবময় অধ্যায়ের জন্য স্থায়ী প্রতিনিধি আয়োজকদের সাধুবাদ জানান তিনি।

এছাড়াও, নিউইয়র্কের কন্সাল জেনারেল নাজমুল হুদা, যুক্তরাষ্ট আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি এম ফজলুর রহমান, প্রজন্ম একাত্তরের সভাপতি শিবলী ছাদিক এবং এনআরবি ওয়ার্ল্ড ওয়াইডের সহ-সাধারণ সম্পাদক তানভীর কায়সার সভায় বক্তৃতা করেন।

এর পূর্বে, শহিদ মিনারের বেদীতে পুষ্পমাল্য অর্পণের মাধ্যমে ভাষা শহিদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানায় যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ ও বঙ্গমাতা পরিষদ, এনআরবি ওয়াল্ড ওয়াইড, প্রজন্ম ৭১, জ্যাকসন হাইটস মহানগর আওয়ামী লীগ, যুব লীগ যুক্তরাষ্ট্র শাখা, হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রীষ্টান ঐক্য পরিষদ, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জাসদ), জগন্নাথ হল এলামনাই এসোসিয়েশন, গাইবান্ধা সোসাইটি ইনক ও প্রবাসী মতলব সমিতি। নিউইয়র্কের বিভিন্ন সংগঠনের শিলপীরা এ সময় দেশাত্মবোধক গান করেন