সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০২৪

শিরোনাম

পশ্চিম তীরে ইসরায়েলের ড্রোন হামলা ছয়জন নিহত

রবিবার, জানুয়ারী ৭, ২০২৪

প্রিন্ট করুন

পশ্চিম তীর, ফিলিস্তিন: অধিকৃত পশ্চিম তীরের জেনিন শহরে ইসরায়েলের ড্রোন হামলায় ছয় ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছেন। এই হামলার ব্যাপারটিকে নজিরবিহীন বলে অভিহিত করেছেন বিশ্লেষকরা। রোববার (৭ জানুয়ারি) সকালে এই হামলার ঘটনা ঘটেছে। খবর এএফপির।

পশ্চিম তীরের ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষের আওতাধীন স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় বিবৃতিতে জানিয়েছে, ‘জেনিনে ফিলিস্তিনি নাগরিকদের ওপর ইসরায়েলের বাহিনী হামলা চালালে ছয় জন নিহত হন।’

এর পূর্বে, ফিলিস্তিনের সংবাদ মাধ্যম ওয়াফা রোববার (৭ জানুয়ারি) ভোরে জানায়, জেনিনে বড় ধরনের সামরিক অভিযান চালাচ্ছে ইসরায়েল।

জেনিন শহরের দক্ষিণে একটি ব্যস্ত সড়কের মোড়ে বসে থাকা কিছু মানুষের ওপর এই ড্রোন হামলা চালানো হয়।

প্রত্যক্ষদর্শীদের দাবি, আক্রান্তদের সকলে বেসামরিক ব্যক্তি ছিলেন। সেখানে মাটিতে ছিন্নবিচ্ছিন্ন মৃতদেহ পড়ে থাকতে দেখা গেছে।

সরকারী হাসপাতাল ছয় জন নিহত হওয়ার ব্যাপারটি নিশ্চিত করেছে।

রাত একটার দিকে ইসরায়েলের বাহিনী জেনিন শহরে ঢুকে পড়ে। অভিযান শেষে তারা ভোর পাঁচটার দিকে জেনিন ছেড়ে চলে যায়।

জেনিন ক্যাম্পে অবস্থানরত সশস্ত্র যোদ্ধারা ইসরায়েলের হামলার বিরুদ্ধে তীব্র প্রতিরোধ গড়ে তোলেন বলে জানিয়েছেন প্রত্যক্ষদর্শীরা।

এ সময় অন্তত একটি হাতে বানানো বিস্ফোরক বিস্ফোরিত হয়। যার ফলে একটি ইসরায়েলি সামরিক পরিবহণ ধ্বংস হয়।

সামরিক হেলিকপ্টারে করে আহত এক সৈন্যকে সরিয়ে নিয়েছে ইসরায়েল। তবে, মোট কতজন সৈন্য আহত হয়েছেন, সে ব্যাপারে কোন তথ্য পাওয়া যায়নি।

বিশ্লেষকদের মতে, এটা কোন বিশেষ অভিযান নয়। গেল ৭ অক্টোবরের পর থেকেই অধিকৃত পশ্চিম তীরে নিয়মিত রাত্রিকালীন অভিযান চালাচ্ছে ইসরায়েল।

গেল ৭ অক্টোবর ইসরায়েলের ভূখণ্ডে নজিরবিহীন ও আচমকা হামলা চালায় হামাস। এই হামলায় এক হাজার ১৪০ জনের মৃত্যু হয়। হামাসের হাতে জিম্মি হন ২৫০ জন। ইসরায়েলের দেয়া তথ্যানুযায়ী, হামাসের হাতে এখনো ১৩২ জন আটক আছেন। জিম্মি অবস্থায় প্রাণ হারিয়েছেন ২৪ জন। বাকিরা এক সপ্তাহব্যাপী যুদ্ধবিরতি ও বন্দি বিনিময় চুক্তির আওতায় মুক্তি পান।

হামাসের হামলার উত্তরে ইসরায়েল টানা তিন মাস ধরে গাজায় নিরবচ্ছিন্নভাবে স্থল ও বিমানহামলা চালিয়ে যাচ্ছে। গাজার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের দেয়া তথ্যানুযায়ী, এই হামলায় এখন পর্যন্ত নিহত হয়েছেন ২২ হাজার ৭২২ ফিলিস্তিনি। তাদের অধিকাংশই নারী ও শিশু।

এই সংঘাত শুরুর পর অধিকৃত পশ্চিম তীরেও ছড়িয়ে পড়েছে সহিংসতা। গেল ৭ অক্টোবরের পর সেখানে মারা গেছেন ৩২৭ ফিলিস্তিনি। এই সময়ের মধ্যে পশ্চিম তীরে গ্রেফতার হয়েছেন অন্তত পাঁচ হাজার ৬০০ ও আহত হয়েছেন তিন হাজারেরও বেশি ফিলিস্তিনি।

জেনিন শহর ও সেখানে অবস্থিত রিফিউজি ক্যাম্পে অসংখ্য বার হামলা ও অভিযান চালিয়েছে ইসরায়েল।

১৯৬৭ সালের ছয় দিনব্যাপী যুদ্ধের পর পশ্চিম তীর দখল করে নেয় ইসরায়েল।