মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪

শিরোনাম

বর্তমান সরকার ৭১’র হানাদার বাহিনীর চেয়ে কোন অংশে কম নয়

বুধবার, ডিসেম্বর ১৪, ২০২২

প্রিন্ট করুন

চট্টগ্রাম: ‘১৯৭১ সালে পাক হানাদার বাহিনী বুদ্ধিজীবীদের তুলে নিয়ে গিয়ে হত্যা করেছিল, আজকে বর্তমান সরকারও একই কায়দায় মানুষের উপর নির্যাতন ও নিপীড়ন চালাচ্ছে।’ বলেছেন চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সদস্য সচিব আবুল হাশেম বক্কর।

বুধবার (১৪ ডিসেম্বর) বিকালে সিটির কাজীর দেউড়ীর নাসিমন ভবনস্থ দলীয় কার্যালয় মাঠে চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির উদ্যোগে শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসের আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন। এ সময় বুদ্ধিজীবীদের স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানিয়ে তাদের রুহের মাগফেরাত কামনা করেন বক্কর।

সভায় তিনি আরো বলেন, ‘আজকেও একইভাবে বিএনপি নেতাকর্মীদের হত্যা করা হচ্ছে। পুলিশ দিয়ে নেতাকর্মীদের ওপর হামলা করে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয় তছনছ করা হয়েছে। মির্জা ফখরুল ও মির্জা আব্বাসসহ শীর্ষ নেতাকর্মীদের গ্রেফতার করা হয়েছে। দেশের মানুষের ওপর স্টিম রোলার চালাচ্ছে। বর্তমান সরকার ১৯৭১ সালের হানাদার বাহিনীর চেয়ে কোন অংশে কম নয়। তারা সারা বিশ্বে বাংলাদেশের সম্মানকে ক্ষুন্ন করেছে। যুক্তরাষ্ট্র আমাদের আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে নিষেধাজ্ঞা দিয়ে খুব পরিষ্কার করে বলেছে, এরা মানবাধিকার লঙ্ঘন করেছে। আজ বাংলাদেশ বিশ্বের দরবারে গণতন্ত্রহীন ও মানবাধিকার লঙ্ঘনের দেশ হিসেবে চিহ্নিত হয়েছে।’

আলোচনা সভার পরে চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রদল নেতা আলাউদ্দিন সুমনের পঞ্চম মৃত্যু বার্ষিকী উপলক্ষে দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়। এতে মরহুম সুমনের পিতা সালাউদ্দিন লাথু ও ছোট ভাই এরশাদ উদ্দিন আবিরসহ নেতাকর্মীরা অংশ নেন।

আবুল হাশেম বক্কর বলেন, ‘শহীদ বুদ্ধিজীবীরা স্বপ্ন দেখেছিলেন, একটি গণতান্ত্রিক বাংলাদেশের। দেশের ভিতেরে লুকিয়ে থাকা অপশক্তি তাদের সে প্রত্যাশাকে বাস্তবায়িত হতে দেয় নি। স্বাধীনতার পর থেকেই অগণতান্ত্রিক শক্তি দেশের মানুষের গণতান্ত্রিক অধিকারগুলো হরণ করে স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্বকে দুর্বল করেছে। গণতন্ত্রকে রাষ্ট্র ও সমাজ থেকে উচ্ছেদ করা হয়েছে। বর্তমান ক্ষমতাসীনরা বিভেদ, অনৈক্য ও সংকীর্ণতার দ্বারা জাতীয় অগ্রগতির পথে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করছে।’

তিনি দ্রুত খালেদা জিয়া, মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ও মির্জা আব্বাসসহ গ্রেফতারকৃত সব নেতাকর্মীর নিঃশর্ত মুক্তির দাবি জানান।

সভায় সভাপতিত্ব করেন চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক এমএ আজিজ। বক্তৃতা করেন চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি এডভেঅকেট এনামুল হক, চট্টগ্রাম মেডিকেল শাখা ড্যাবের সভাপতি ডাক্তার মো. জসিম উদ্দিন, মহানগর নারী ও শিশু অধিকার ফোরামের আহবায়ক জাহিদুল করিম কচি, চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি মো. শানওয়াজ, চট্টগ্রাম জেলা ড্যাবের সভাপতি ডাক্তার তমিজ উদ্দীন আহমেদ।

চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির আহবায়ক কমিটির সদস্য মো. কামরুল ইসলামের পরিচালনায় আলোচনায় অংশ নেন পেশাজীবি নেতা সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী, এসএম সারোয়ার আলম, জন্টু বড়ুয়া, মহানগর যুবদলের সভাপতি মোশাররফ হোসেন দিপ্তী, স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি এইচএম রাশেদ খান, কৃষকদলের সদস্য সচিব কামাল পাশা নিজামী, আকবর শাহ থানা বিএনপির সভাপতি আবদুস সাত্তার সেলিম, কোতোয়ালী থানা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসেন, ইপিজেড থানা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক রোকন উদ্দিন মাহমুদ প্রমুখ।