সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪

শিরোনাম

বাংলাদেশী পুলিশ অফিসারদের প্রশংসায় নিউইয়র্ক সিটির মেয়র এরিক এডামস

মঙ্গলবার, নভেম্বর ৮, ২০২২

প্রিন্ট করুন

নিউইয়র্ক, যুক্তরাষ্ট্র: নিউইয়র্ক পুলিশে কর্মরত বাংলাদেশী-আমেরিকানদের সংগঠন ‘বাংলাদেশী আমেরিকান পুলিশ এসোসিয়েশেন’র (বাপা) ষষ্ঠ বার্ষিক অ্যাওয়ার্ড ডিনার ২৮ অক্টোবর সন্ধ্যায় কুইন্সের একটি পার্টি হলে অনুষ্ঠান হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্র ও বাংলাদেশের জাতীয় সঙ্গীতের পরিবেশনের মাধ্যমে শুরু হয় এ অনুষ্ঠান।

এতে প্রধান অতিথি ছিলেন নিউইয়র্ক সিটির মেয়র এরিক এডামস। অনুষ্ঠানে নিউইয়র্কে পুলিশ বাহিনীতে কর্মরত বাংলাদেশী অফিসারদের প্রশংসা করে তিনি বলেন, ‘আপনারা নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালন করছেন বলেই এ সিটির জনজীবনকে নিরাপদ রাখা সম্ভব হচ্ছে।’

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন সংগঠনের সভাপতি ক্যাপ্টেন করম চৌধুরী। মঞ্চে বাপার বোর্ড অব ট্রাস্টির সবার উপস্থিতিতে বিভিন্ন ক্ষেত্রে অবদানের জন্য পুলিশ অফিসারদের পুরস্কৃত করা হয়। সম্মাননা পেয়েছেন সিডব্লিউএ লোকাল ১১৮২ এর ভারপ্রাপ্ত প্রশাসক রিকি মরিসন, পিবিএর প্রেসিডেন্ট প্যাট্রিক লিনচ, কমিউনিটি সার্ভিসে বিশেষ অবদান রাখার জন্য স্মারক পেয়েছে জ্যামাইকা মুসলিম সেন্টার, সিভিলিয়ান অ্যাওয়ার্ড পেয়েছেন ট্রাফিক এজেন্ট সৈয়দ উদবা, বছরের সেরা পুলিশ সম্মাননা পেয়েছেন সার্জেন্ট ফুয়াদ হাসান, কমান্ডিং অফিসার অব দ্যা ইয়ার সম্মাননা পেয়েছেন কমান্ডিং অফিসার ৬৯ পুলিশ প্রিসিন্ট ক্যাপ্টেন খন্দকার আদুল্লাহ, চিফ জুডিথ হ্যারিসনকে দেয়া হয়েছে ওম্যান অব দ্যা ইয়ার পদক, ম্যান অব দ্যা ইয়ার পদক পেয়েছেন চিফ জেফ মেডরেই, বছরের হিরোইজম অ্যাওয়ার্ড দেয়া হয়েছে ডিটেকটিভ রিভেরা ও ডিটেকটিভ মোরা পরিবারকে।

অনুষ্ঠানে নিউইয়র্কে বাংলাদেশের কন্সাল জেনারেল মনিরুল ইসলাম বলেন, ‘গৌরবে আমার বুকটা ভরে যায়, যখন এ সিটির নানা পর্যায়ের কর্মকর্তাদের কাছ থেকে বাংলাদেশি আমেরিকান পুলিশ এসোসিয়েশনের সদস্যদের বিষয়ে ইতিবাচক মন্তব্য শুনি।’

অনুষ্ঠানে কমিউনিটির নেতাদেরকে পরিচয় করিয়ে দেন বাপার সেক্রেটারি লেফটেন্যান্ট একেএম আলম প্রিন্স। বাপার ট্রাস্টি মাসুদ রহমান রহমানের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে কণ্ঠশিল্পী এসআই টুটুল ও কমিউনিটির দুই কণ্ঠশিল্পী রাজিব ও তৃণিয়া হাসান সঙ্গীত পরিবেশন করেন।

অনুষ্ঠানে অতিথিদের স্বাগত জানান সংগঠনের দ্বিতীয় ভাইস প্রেসিডেন্ট ট্রাফিক সুপারভাইজার আলী চৌধুরী, ইভেন্ট কো-অর্ডিনেটর অফিসার সর্দার মামুন, ট্রেজারার অফিসার রাসেকুর মালিক, কো ট্রেজারার অফিসার মেহেদী মামুন, মিডিয়া লিয়াজন জামিল সারওয়ার, কমিউনিটি লিয়াজন অফিসার মাহবুব জুয়েল, সার্জেন্ট অফ আর্মস অফিসার সোনিয়া বড়ুয়া, বাপার ট্রাস্টি অফিসার জসীম মিয়া, ট্রাফিক সুপারভাইজার মহেউদ্দীন আহমেদ, সার্জেন্ট মুরাদ আহমেদ, অফিসার সব্বির আহমেদ ও সার্জেন্ট হাসান আহমেদ, ট্রাফিক সুপারভাইজার অনিক হোসাইন, অফিসার রিপন ইসলাম, অক্সিলারি লেফটেন্যান্ট সাইদ আলী, ট্রাফিক সুপারভাইজার পাপিয়া শারমিন।

অনুষ্ঠানের শেষ পর্যায়ে র‌্যাফেল ড্র অনুষ্ঠিত হয়। বাপার কর্মকর্তারা র‌্যাফেল ড্র বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন। বাপার ফার্স্ট ভাইস প্রেসিডেন্ট সার্জেন্ট এরশাদ সিদ্দিকীর বক্তব্যের মাধ্যমে অনুষ্ঠান শেষ হয়।