রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪

শিরোনাম

বাংলাদেশে আর্থিক বাজার সংক্রান্ত গবেষণার প্লাটফর্ম হল বিআইসিএম

বৃহস্পতিবার, আগস্ট ১১, ২০২২

প্রিন্ট করুন

ঢাকা: ‘বিআইসিএম রিসার্চ সেমিনার-১৪’ বৃহস্পতিবার (১১ আগস্ট) সকালে বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ক্যাপিটাল মার্কেটের (বিআইসিএম) মাল্টিপারপাস হলে অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে ‘সোস্যাল ক্যাপিটাল অ্যান্ড ক্যাপিটাল এলোকেশন ইফিসিয়েন্সি’ শীর্ষক মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন নর্থ ক্যারোলিনা এগ্রিকালচার এন্ড টেকনিক্যাল স্টেট ইউনিভার্সিটির সিএফএ মোহাম্মাদ নাজমুল হাসান ভূঁইয়া।

ইনস্টিটিউটের নির্বাহী প্রেসিডেন্ট মাহমুদা আক্তারের সভাপতিত্বে সেমিনারের আলোচক ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) বিজনেস স্টাডিজ অনুষদের ফিন্যান্সের অধ্যাপক এম জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরী ও একই বিভাগের সহকারী অধ্যাপক শাকিলা হালিম।

সেমিনার সঞ্চালনা করেন ইন্সটিটিউটের রিসার্চ ফেলো সুবর্ণ বড়ুয়া।

মূল প্রবন্ধে মোহাম্মাদ নাজমুল হাসান ভূঁইয়া বলেন, ‘এ প্রবন্ধে স্যোসাল ক্যাপিটাল কিভাবে ফার্মের দক্ষতাকে প্রভাবিত করছে, তা অনুসন্ধান করা হয়েছে। ওই গবেষণা থেকে প্রতীয়মান যে, কোন ফার্মের সদর দফতর এলাকার কমিউনিটি স্যোসাল ক্যাপিটাল তার মূলধন বরাদ্দের অদক্ষতার উপর বিরূপ প্রভাব ফেলে। এছাড়াও, নিন্মমানের অভ্যন্তরীণ নৈতিক পরিশীলন ও কম সামাজিক সংযোগ বিদ্যমান- এমন সংস্থাগুলিতে কমিউনিটি স্যোসাল ক্যাপিটালের প্রভাব আরো স্পষ্ট।’

মাহমুদা আক্তার বলেন, ‘বাংলাদেশে আর্থিক বাজার সংক্রান্ত গবেষণার প্লাটফর্ম হল বিআইসিএম। এখানে আর্থিক বাজার, বিশেষত ক্যাপিটাল মার্কেট সংক্রান্ত গবেষণাকে জোর দেয়ার অংশ হিসেবে বিআইসিএম নিয়মিতভাবে এ রিসার্চ সেমিনার আয়োজন করছে। দেশের ক্যাপিটাল মার্কেটকে তার কাঙ্খিত অবস্থানে নিয়ে যেতে গবেষণা অপরিহার্য।

এম জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরী বলেন, ‘প্রবন্ধটির টাইটেল সোস্যাল ক্যাপিটালের পরিবর্তে কমিউনিটি সোস্যাল ক্যাপিটাল হলে অধিক প্রাসঙ্গিক হত ও ক্যাপিটাল টাইটেলটি অ্যালোকেশন ইফিসিয়েন্সির পরিবর্তে ইনভেস্টমেন্ট অ্যালোকেশন ইফিসিয়েন্সি হওয়া অধিক যুক্তিযুক্ত ছিল।’

একই সাথে তিনি প্রবন্ধটির ক্ষেত্রে স্ট্র্যাকচারাল থিওরি অব সোস্যাল ক্যাপিটাল ও সোস্যাল নর্মস্ থিওরি ব্যবহারের যৌক্তিকতা নিয়েও আলোকপাত করেন।’

শাকিলা হালিম বলেন, ‘ট্রাডিশন্যাল ওয়ের বাইরে গতানুগতিক প্রথার বাহিরে গিয়ে বহি:স্থ স্টেকহোল্ডারদের এক্সটারনাল স্টেহোল্ডার ইস্যু নিয়ে এমন একটি কাজ সত্যিই প্রসংশার দাবি রাখে। এটি সমসাময়িক ইস্যুতে খুব সুন্দর একটি কাজ। কিন্তু, এখানে ক্যাপিটাল অ্যালোকেশন ইফিসিয়েন্সিতে শুধুমাত্র ইথিক্যাল ইস্যুতে প্রাধান্য দেয়া হয়েছে। ফার্মের ওভার ইনভেস্টমেন্ট ও আন্ডার ইনভেস্টমেন্টের ক্ষেত্রে আরো অনেক বিষয় রয়েছে। এছাড়াও, এখানে ইফিসিয়েন্সির অন্য কোন মডেল ফিট হয় কিনা তা দেখা যেতে পারত।’