সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০২৪

শিরোনাম

ব্যালট বাক্স ভর্তি, নানা অনিয়ম, কম ভোটার উপস্থিতির মধ্যেই ভোট গ্রহণ

রবিবার, জানুয়ারী ৭, ২০২৪

প্রিন্ট করুন

ঢাকা: দেশের নানা স্থানে ব্যালট বাক্স ভর্তি, নানা অনিয়ম ও বিক্ষিপ্ত সহিংসতার মধ্যে দিয়েই রোববার (৭ জানুয়ারি) বিকালে শেষ হয়েছে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ভোট গ্রহণ। মুন্সীগঞ্জ ও কুমিল্লায় দুইজনের মৃত্যু এবং বেশ কয়েকজন আহত হওয়ার সংবাদ পাওয়া গেছে।

দেশের ৩০০টি আসনের মধ্যে ২৯৯টি আসনে কঠোর নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে রোববার (৭ জানুয়ারি) সকাল আটটায় ভোট গ্রহণ শুরু হয়ে বিকাল চারটায় ভোট গ্রহণ শেষ হয়। ভোট শেষ হওয়ার পরপরই ভোট গণনা শুরু হয়েছে। খবর ইউএনবির।

সহিংসতা, ভোট কেন্দ্র দখল ও ব্যালট বাক্স ভর্তি করার অভিযোগে তিনটি কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ স্থগিত করা হয়। সিলেটের দুই ভোট কেন্দ্রের সামনে ‘নির্বাচনবিরোধী স্লোগান’ দিয়ে ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনাও ঘটেছে।

আওয়ামী লীগের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রোববার (৭ জানুয়ারি) সকালে ঢাকা সিটি কলেজে ভোট দিয়েছেন।

নির্বাচন কমিশন (ইসি) সচিব জাহাংগীর আলম জানান, রোববার (৭ জানুয়ারি) বিকাল তিনটা পর্যন্ত ২৭ দশমিক ১৫ শতাংশ ভোট পড়েছে। আগারগাঁও নির্বাচন কমিশন (ইসি) ভবনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ তথ্য জানান। এর মধ্যে ঢাকায় ২৫ শতাংশ, চট্টগ্রামে ২৭ শতাংশ, খুলনায় ৩২ শতাংশ, সিলেটে ২২ শতাংশ, ময়মনসিংহে ২৯ শতাংশ, রাজশাহীতে ২৬ শতাংশ, রংপুরে ২৬ শতাংশ ও বরিশালে ৩১ শতাংশ ভোট পড়েছে।

এ দিকে, প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী হাবিবুল আউয়াল বলেছেন, ‘তিনি ভোটার উপস্থিতি নিয়ে ভাবছেন না। তার দায়িত্ব হচ্ছে নির্বাচনের ব্যবস্থা করা।’

ঢাকা, দিনাজপুর, চট্টগ্রাম, ভোলা, চাঁপাইনবাবগঞ্জ ও খুলনাসহ সারা দেশে প্রত্যাশার চেয়ে কম ভোটার উপস্থিতি দেখা গেছে ভোট কেন্দ্রগুলোতে।

ঢাকার গুলশান-২ এর গুলশান মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজ কেন্দ্র পরিদর্শন করে দেখা যায়, বেলা ১১টা পর্যন্ত প্রথম তিন ঘণ্টায় ১৩ হাজার নিবন্ধিত ভোটারের মধ্যে মাত্র ৩৫ জন ভোট দিয়েছেন। তবে, সকাল দশটার পর হঠাৎ পাঁচ থেকে দশ মিনিটের জন্য ভোটারের লাইন দেখা যায়।

ঢাকা-আট (রমনা-মতিঝিল) আসনের উদয়ন স্কুল কেন্দ্রে ভোট গ্রহণের প্রথম দুই ঘণ্টায় মাত্র ৫০টি ভোট পড়েছে বলে জানিয়েছেন প্রিসাইডিং অফিসার লিটন দাস।

তিনি বলেন, ‘সুষ্ঠুভাবে ভোট গ্রহণ চলছে।’

ইলেকশন ম্যানেজমেন্ট অ্যাপসের তথ্য অনুযায়ী, ঢাকা-আট আসনের তিনটি কেন্দ্রে ভোট গ্রহণের প্রথম চার ঘণ্টায় মাত্র আট শতাংশ ভোট পড়েছে।

এ দিকে, ঢাকা-১২ আসনের তেজগাঁও আদর্শ স্কুল অ্যান্ড কলেজের দুটি বুথে সাড়ে চার ঘণ্টার মধ্যে ৮৯৮ জন ভোটারের মধ্যে ৫০ জন ভোট দিয়েছেন।

ঢাকা-১৮ আসনের উত্তরা হাই স্কুল ও কলেজ এলাকায়ও একই অবস্থা। ভোট কেন্দ্রের প্রিসাইডিং অফিসার তোফাজ্জল হোসেন জানান, পুরুষ ভোটারদের জন্য নির্ধারিত কেন্দ্র-৩-এ মোট নিবন্ধিত ভোটারের সংখ্যা দুই হাজার ১৫৮ জন হলেও দুপুর ১২টা পর্যন্ত মাত্র ১২০টি ভোট পড়েছে।

তবে, ঢাকা-১৬ আসনের কেন্দ্রগুলোতে ভোটার উপস্থিতি বাড়তে শুরু করেছিল।

ভোটের প্রথম চার ঘণ্টায় ঢাকার বাইরেও কম ভোটার উপস্থিতি লক্ষ্য করা গেছে। সকাল দশটা পর্যন্ত দিনাজপুরের ভোটকেন্দ্রগুলোতে ভোটার উপস্থিতি ছিল খুবই কম।

এ দিকে, প্রার্থীদের সমর্থকরা কেন্দ্রের সামনে জড়ো হয়ে স্লোগান দিয়েছেন।

নির্বাচনের প্রথমার্ধে কুমিল্লা, বাগেরহাট, বরিশাল ও হবিগঞ্জে প্রত্যাশার চেয়ে কম ভোটার উপস্থিতি লক্ষ্য করা গেছে।

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে পুরো দেশে বিক্ষিপ্ত সহিংসতার সংবাদ পাওয়া গেছে।

মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলার মীরকাদিমের টেঙ্গরে আওয়ামী লীগ প্রার্থীর এক সমর্থককে ছুরিকাঘাতে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এছাড়া, চট্টগ্রামের একাধিক স্থানে সহিংসতার সংবাদ পাওয়া গেছে।

চট্টগ্রাম-দশ আসনের কালশী-পাহাড়তলী এলাকায় আওয়ামী লীগ প্রার্থী ও স্বতন্ত্র প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে দুইজন গুলিবিদ্ধ হয়েছেন।

এ দিকে, চট্টগ্রাম সিটির চান্দগাঁও এলাকায় ভোটারদের ভোট দিতে বাধা দেয়ার চেষ্টা করায় পুলিশ ও বিএনপির নেতা-কর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে।

যশোরে ভোট গ্রহণ শুরুর এক ঘণ্টা আগে একটি ভোট কেন্দ্রে ককটেল বিস্ফোরণে বাংলাদেশ আনসারের এক সদস্য আহত হয়েছেন।

বরিশাল-পাঁচ আসনেও সংঘর্ষের সংবাদ পাওয়া গেছে।

বরিশাল-পাঁচ (সদর) আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী সালাহউদ্দিন রিপন অভিযোগ করেছেন, আওয়ামী লীগের প্রার্থীর সমর্থকরা তার সমর্থকদের ওপর হামলা করেছে, এজেন্টদের কেন্দ্র থেকে বের করে দিয়েছে ও ভোট গ্রহণে বাধা দিচ্ছে।

অনিয়মের অভিযোগে নরসিংদী-চার (মনোহরদী-বেলাবো) আসনের একটি কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ বাতিল করা হয়েছে।

নরসিংদী জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা বদিউল আলম জানান, ব্যালট জালিয়াতির অভিযোগে ভোট গ্রহণ বাতিল করা হয়েছে।

কুমিল্লা-চার (দেবিদ্বার) আসনে আওয়ামী লীগের সমর্থকদের বিরুদ্ধে ব্যালট পেপারে নৌকা প্রতীকে সিল দেয়ার অভিযোগ উঠেছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হওয়া ভিডিওতে ব্যালট বইয়ের অসংখ্য পাতায় নৌকা প্রতীক দেখানো হয়েছে। এ সময় উপস্থিত সহকারী প্রিসাইডিং কর্মকর্তাসহ অন্য কর্মকর্তারা জানান, কিছু লোক এসে জোরপূর্বক নৌকা প্রতীকে সিল দিয়ে চলে যায়।

এ দিকে, ময়মনসিংহের গফরগাঁও আসনে দুইজন স্বতন্ত্র প্রার্থী এবং নরসিংদী-দুই আসনে জাতীয় পার্টির এক প্রার্থী অনিয়ম ও ভোট কারচুপির অভিযোগ এনে নির্বাচন বর্জন করেছেন। ঈগল প্রতীকের স্বতন্ত্র প্রার্থী আবুল হোসেন দিপু ও ট্রাক প্রতীকের প্রার্থী কায়সার আহমেদ জানান, উপজেলার ১৫টি ইউনিয়ন ও পৌর এলাকার অধিকাংশ ভোট কেন্দ্রের পোলিং এজেন্টদের জোর করে ভোট কেন্দ্র থেকে বের করে দেয়ায় তারা ভোট বর্জন করেছেন।

এ দিকে, অনিয়মের অভিযোগ তুলে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন নরসিংদী-দুই আসনে জাতীয় পার্টির প্রার্থী রাকিকুল আলম সেলিম।