সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০২৪

শিরোনাম

মাদারীপুর-তিন/কেন্দ্র দখল নিয়ে দুই পক্ষের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া, আহত চার

রবিবার, জানুয়ারী ৭, ২০২৪

প্রিন্ট করুন

মাদারীপুর: মাদারীপুরে একটি ভোট কেন্দ্র দখল নেয়াকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এতে আহত হয়েছেন অন্তত চারজন। রোববার (৭ জানুয়ারি) সকাল ১১টার দিকে সদর উপজেলার ঘটকচর বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্রে এ ঘটনা ঘটে। এতে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে ভোটারদের মাঝে। সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে সেনাবাহিনী, বিজিবি, র‌্যাব ও অতিরিক্ত পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

স্থানীয়রা জানান, মাদারীপুর-তিন আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী আবদুস সোবহান মিয়া গোলাপের সমর্থক আকবর মাতুব্বর প্রথমে ভোট প্রদানে বাঁধার সৃষ্টি করেন। তাৎক্ষণিকভাবে এর প্রতিবাদ করেন স্বতন্ত্র প্রার্থী ঈগল প্রতীকের তাহমিনা বেগমের সমর্থক আফজাল মুন্সী। এ সময় উভয়পক্ষের লোকজনের মধ্যে চরম উত্তেজনা দেখা যায়। এ সংবাদ ছড়িয়ে পড়লে উভয়পক্ষের লোকজন দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে ভোট কেন্দ্রের সামনে জড়ো হয়। পরে দুই পক্ষের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এ সময় ভোট কেন্দ্রে দখল নেয়ার চেষ্টা করে তারা। পরে ব্যর্থ হয়। সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে সেনাবাহিনী, বিজিবি, র‌্যাব ও অতিরিক্ত পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এতে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে ভোটারদের মাঝে।

মাদারীপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. কামরুল ইসলাম জানান, দুই পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা ও ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনার সংবাদ পেয়ে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের সহযোগিতায় পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এ সময় সেনাবাহিনী, বিজিবি, র‌্যাব ও অন্যান্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে একযোগে কাজ করে।

মাদারীপুর-তিন আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী আবদুস সোবহান মিয়া গোলাপ, স্বতন্ত্র প্রার্থী তাহমিনা বেগম, জাতীয় পার্টির মো. আব্দুল খালেক, তৃণমূল বিএনপির প্রবীণ হালদার, বাংলাদেশ সুপ্রিম পার্টির নিতাই চক্রবর্তী, কৃষক-শ্রমিক-জনতা লীগের প্রার্থী নকুল কুমার বিশ্বাস প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

কালকিনি ও ডাসার উপজেলার ১৫টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভা এবং মাদারীপুর সদরের পাঁচটি ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত মাদারীপুর-তিন আসনে মোট ভোটার তিন লাখ ৫৭ হাজার ৮৫৬ জন। পুরুষ ভোটার এক লাখ ৮৬ হাজার ৮৯৩ ও নারী ভোটার এক লাখ ৭০ হাজার ৯৬০ জন। এছাড়া, তৃতীয় লিঙ্গে ভোটারের সংখ্যা তিনজন।