বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪

শিরোনাম

যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যবর্তী নির্বাচনে কঠিন যুদ্ধ: সামান্য এগিয়ে রিপাবলিকানরা

বুধবার, নভেম্বর ৯, ২০২২

প্রিন্ট করুন

ওয়াশিংটন ডিসি, যুক্তরাষ্ট্র: যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যবর্তী নির্বাচনে কঠিন লড়াই চলছে। সামান্য এগিয়ে রয়েছে রিপাবলিকানরা। খবর ডয়চে ভেলের।

মার্কিন কংগ্রেস ও সেনেটের ভোটের গণনা শুরু হয়েছে। পার্লামেন্টের প্রতিনিধি ছাড়াও মঙ্গলবার (৮ নভেম্বর) বেশ কয়েকটি রাজ্যে গভর্নরেরও নির্বাচন হয়েছে। ফ্লোরিডা, জর্জিয়া, পেনসিলভেনিয়া, অ্যারিজোনার মত রাজ্যগুলোতে ভোট গ্রহণ শেষ হয়ে গেছে। বুথ ফেরত সমীক্ষার হিসেব, এবারের ভোটে মূলত দুইটি বিষয় সবচেয়ে বেশি প্রাধান্য পেয়েছে; মুদ্রাস্ফীতি ও গর্ভপাত। ভোটের সমীক্ষা বলছে, ‘রিপাবলিকানদের দিকে মানুষ ঝুঁকে। ফলে মার্কিন কংগ্রেসে ডেমোক্র্যাটদের একাধিপত্য এবার কমতে পারে।’

নির্বাচনের প্রাথমিক ফলাফলে দেখা যাচ্ছে, কংগ্রেসে রিপাবলিকানরা এগিয়ে আছে ১৮৬ টি আসনে। ডেমোক্র্যাটরা এগিয়ে ১৬৪টি আসনে। অন্য দিকে, সেনেটে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই চলছে। রিপাবলিকান এবং ডেমোক্র্যাট দুই পক্ষই ৪৬টি আসনে এগিয়ে।

যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্পের প্রেস সেক্রেটারি ছিলেন সারাহ স্যান্ডার্স। তিনি নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেছিলেন। এপির সমীক্ষা বলছে, ‘তিনি আরাকানসের গভর্নর নির্বাচিত হতে চলেছেন। আরাকানসের প্রথম নারী গভর্নর হতে চলেছেন তিনি। ডেমোক্র্যাটদের হাত থেকে আসনটি ছিনিয়ে নেবেন তিনি। ২০১৭-২০১৯ সাল পর্যন্ত হোয়াইট হাউসে প্রেস সেক্রেটারির কাজ সামলেছেন তিনি।

সবার চোখ পেনসিলভেনিয়ায়: পেনসিলভেনিয়ার আসনটি ছিল রিপাবলিকান সেনেটর প্যাট টুমের। এখানে লড়াই হচ্ছে ডেমোক্র্যাট জন ফেটেরম্যানের সাথে রিপাবলিকান প্রার্থী ও টিভি সেলিব্রিটি মেহমেট ওজের। প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন পেনসিলভেনিয়ায় তিন বার প্রচারে গেছিলেন। অন্য দিকে, ডনাল্ড ট্রাম্পও সেখানে একটি সভা করেছেন। বিশেষজ্ঞদের বক্তব্য, ডেমোক্র্যাট ফেটেরম্যানের জেতার সম্ভাবনা যথেষ্ট। কিন্তু লড়াই হচ্ছে সমানে সমানে। রিপাবলিকান প্রার্থীও শেষ পর্যন্ত কিস্তিমাত করতে পারেন। ডেমোক্র্যাটরা এ রাজ্য জিতলে, একটি রিপাবলিকান অঞ্চলকে নিজেদের হাতে আনতে পারবে তারা।

ফ্লোরিডার লড়াই: রিপাবলিকান প্রতিনিধি মার্কো রুবিওর পুনর্নিবাচনের দাবি করেছিলেন ফ্লোরিডায়। তিনি তা পেয়েছেন। এর ফলে মার্কো সুবিধা পাবেন বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। এপির সমীক্ষা বলছে, ‘ফ্লোরিডায় ভাল ব্যবধানে জিতবেন মার্কো। ২০১০ সাল থেকে এ অঞ্চলের প্রতিনিধি মার্কো। কিন্তু এবার তাকে যতটা লড়াই করতে হয়েছে, বহু দিনের মধ্যে তা হয় নি বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। ২০২৪ সালের পরবর্তী নির্বাচনে মার্কো প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের জন্য লড়তে পারেন বলে মনে করছেন অনেকে।

ভোটের হার বেশি: বেশ কিছু রাজ্যে ভোটের হার উল্লেখযোগ্য রকম বেশি বলে জানিয়েছেন ওয়াশিংটনে ডিডাব্লিউয়ের প্রতিনিধি। তার বক্তব্য, ডেমোক্র্যাট শিবির খুব শান্তিতে নেই। এবারের ভোটে তাদের ফলাফল ভাল হবে না বলে ইতিমধ্যে এই অনেকে ধরে নিয়েছেন। হাউস অফ রিপ্রেসেনটেটিভ ও সেনেট দুই কক্ষেই এবার রিপাবলিকানদের একাধিপত্য হবে বলে মনে করছেন অনেকে। বুথ ফেরত সমীক্ষাও সেই ইঙ্গিতই দিচ্ছে এবং তা যদি হয়, তাহলে আগামী কয়েক বছর প্রেসিডেন্ট বাইডেনের পক্ষে কাজ করা আরো কঠিন হয়ে পড়বে। এত দিন কংগ্রেসে বিরাট সমর্থন পেয়েছেন বাইডেন। উচ্চকক্ষ সেনেটে গিয়ে তাকে বার বার হোঁটচ খেতে হয়েছে। কংগ্রেসে রিপাবলিকানের সংখ্যা বেড়ে গেলে নিম্নকক্ষেও বাইডেনকে প্রতিদ্বন্দ্বিতার মুখে পড়তে হবে।