মঙ্গলবার, ০৫ মার্চ ২০২৪

শিরোনাম

যুক্তরাষ্ট্রের সাথে সম্পর্ক আরো দৃঢ় করতে কাজ করছি

সোমবার, নভেম্বর ২৭, ২০২৩

প্রিন্ট করুন

ঢাকা: তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাছান মাহমুদ বলেছেন, ‘যুক্তরাষ্ট্রের সাথে আমাদের সম্পর্ক অত্যন্ত চমৎকার। আমরা যুক্তরাষ্ট্রের সাথে সম্পর্ক আরো দৃঢ় করতে চাই।’

সোমবার (২৭ নভেম্বর) দুপুরে সচিবালয়ে মন্ত্রণালয়ের সভা কক্ষে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রদর্শক সমিতির নয়া নির্বাচিত কমিটির নেতাদের সাথে মত বিনিময় শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের ‍উত্তরে মন্ত্রী এসব কথা বলেন। চলচ্চিত্র প্রদর্শক সমিতির প্রধান উপদেষ্টা সুদীপ্ত কুমার দাস, নয়া নির্বাচিত সহসভাপতি আমীর হামজা, সহসম্পাদক ফারুক আহম্মদ ও সামিনা ইসলাম নীলা, আইন সম্পাদক আব্দুল মতিন প্রধান, সদস্য মো. ঈশা খান, মো. বিল্লাল হোসেন, মো. চাঁন মিয়া, মীর্জা আব্দুল খালেক, আতিকুর রহমান মত বিনিময়ের সময় উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশে নিযুক্ত যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত পিটার হাসকে নিয়ে রাশিয়ার মুখপাত্রের বক্তব্যের ব্যাপারে জানতে চাইলে তথ্য মন্ত্রী বলেন, ‘রাশিয়া বিবৃতি দিয়েছে, যুক্তরাষ্ট্র সেটির উত্তরও দিয়েছে। সেটি নিয়ে আমি কিছু বলতে চাই না।’

তিনি আরো বলেন, ‘এটি দুই রাষ্ট্রের ব্যাপার। কেউ ছুটিতে যেতে পারে, আবার ছুটি থেকে আসতেও পারে। এটি কোন গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপার বলে আমি মনে করি না।’

মন্ত্রী বলেন, ‘এটি রুটিন কাজের অংশ। যুক্তরাষ্ট্রের সাথে আমাদের সম্পর্ক অত্যন্ত চমৎকার। পাশাপাশি, বহুমাত্রিক সম্পর্ক আছে। আমরা সে সম্পর্ক আরো দৃঢ় করতে কাজ করছি।’

প্রধান নির্বাচন কমিশনার বলেছেন- নির্বাচনে বাইরের থাবা এসে পড়েছে ও দেশের অর্থনীতিকে বাঁচাতে হলে একটি গ্রহণযোগ্য নির্বাচন দিতে হবে৷

একজন রাজনীতিবিদ হিসেবে এবারের নির্বাচন অংশগ্রহণমূলক করা চ্যালেঞ্জ কি না- প্রশ্ন করা হলে হাছান মাহমুদ বলেন, ‘নির্বাচন কমিশন চায়, দেশে একটি গ্রহণযোগ্য ও উৎসবমুখর একটি নির্বাচন হোক। আমরাও সেটি চাই। আমরা চাই, সকলে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করুক। এরমধ্যে পুরো দেশে নির্বাচনের যেভাবে সাড়া পড়েছে, যেভাবে নির্বাচনী আমেজ তৈরি হয়েছে। আমি দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি, জনগণের ব্যাপক অংশগ্রহণ নির্বাচনে থাকবে।’

মন্ত্রী আরো বলেন, ‘এছাড়া, অন্য দলগুলো যারা এখনো নির্বাচনে আসার ঘোষণা দেয়নি, তাদের অনেকেই দ্রুত ঘোষণা দেবে।’

হিউম্যান রাইটস ওয়াচ রোববার (২৬ নভেম্বর) সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে, দেশে নির্বাচনকে কেন্দ্র করে দমন-পীড়ন চলছে।

এ বিষয়ে তথ্য মন্ত্রীর মতামত চাইলে তিনি বলেন, ‘হিউম্যান রাইটস ওয়াচ বিভিন্ন সময় বিবৃতি বিক্রি করে। ফলে, তাদের নিয়ে আমি তেমন কোন কথা বলতে চাই না।’

তিনি বলেন, ‘দেশে যেমন কিছু বিবৃতিজীবী আছে, আর আন্তর্জাতিকভাবেও কিছু বিবৃতিজীবী আছে। হিউম্যান রাইটস ওয়াচ দেশে যে এত গাড়ি-ঘোড়া পোড়ানো হচ্ছে, সেটি যখন তাদের বিবৃতিতে অনুপস্থিত থাকে আর অন্যটিকে গুরুত্ব দেয়া হয়, সেই বিবৃতিজীবীদের নিয়ে আমি কথা বলতে চাই না।’

তথ্য মন্ত্রী আরো বলেন, ‘অ্যামিনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল বিবৃতি দেয় যুদ্ধাপরাধীদের বাঁচানোর জন্য আর গাজায় হত্যাকাণ্ড হলে চুপ থাকে। আর বাংলাদেশে কেউ কাউকে ঘুষি মারলে বিবৃতি দেয়। এসব বিবৃতি নিয়ে কথা বলতে চাই না। এগুলোর গ্রহণযোগ্যতা নেই।’