শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪

শিরোনাম

শেষ হল ওয়াশিংটন সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি ইউনিভার্সিসিটির কমেন্সমেন্ট-২০২৪

সোমবার, জুলাই ৮, ২০২৪

প্রিন্ট করুন

ভার্জিনিয়া, যুক্তরাষ্ট্র: যুক্তরাষ্ট্রের ভার্জিনিয়াস্থ ওয়াশিংটন ইউনিভার্সিটি অব সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজির (ডব্লিউইএসটি) কমেন্সমেন্ট- ২০২৪ সম্পন্ন হয়েছে। এতে অংশ নেয়া ২১৩ শিক্ষার্থী অর্জন করেন ব্যাচেলরস ও মাস্টার্স ডিগ্রি। এদের মধ্যে স্কুল অব আইটি থেকে ১৫৮ জন, আর স্কুল অব বিজনেস থেকে ৫৫ জন গ্র্যাজুয়েট হয়েছেন।

গেল ২৯ জুন আলেক্সান্দ্রিয়া সিটি হাইস্কুল কম্পাউন্ডে এ কমেন্সমেন্টের আয়োজন করা হয়। এ দিন কিনোট স্পিকার ছিলেন যুক্তরাষ্ট্র প্রতিনিধি সভার সদস্য কংগ্রেসম্যান গেরি কোনোলি। বক্তা ছিলেন ভার্জিনিয়া হাউজ অব ডেলিগেটসের সদস্য ক্যারেন কিজ-গামারা। বিশ্ববিদ্যালয়ের চ্যান্সেলর ও বোর্ড চেয়ারম্যান আবুবকর হানিপ শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন। আর আনুষ্ঠানিকভাবে শিক্ষার্থীদের গ্র্যাজুয়েশন ঘোষণা করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রেসিডেন্ট হাসান কারাবার্ক।

শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে গেরি কনোলি বলেন, ‘তোমাদের এ অর্জন নিঃসন্দেহের প্রশংসার দাবি রাখে। তোমরা যুক্তরাষ্ট্রের সবচেয়ে শিক্ষিত জনগোষ্ঠীর অংশিদার। নর্দার্ন ভার্জিনিয়া থেকে তোমরা গ্র্যাজুয়েট হয়েছ; যেখানে বয়স্ক জনশক্তির দুই তৃতীয়াংশই ব্যাচেলর ডিগ্রিধারী। আর ৩০ শতাংশের বেশিই রয়েছেন যারা উচ্চতর ডিগ্রি নিয়েছেন। যে পরিসংখ্যান যুক্তরাষ্ট্রের গড় পরিসংখ্যানের দ্বিগুণ।’

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি-প্রকৌশল ও গণিতে ডিগ্রি অর্জনের সময়োপযোগিতার কথা তুলে ধরে এ কংগ্রেসম্যান বলেন, ‘প্রযুক্তিজ্ঞান ও দক্ষতাকে ব্যবহার করেই জলবায়ূ পরিবর্তন, অতিমারি, কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার অপব্যবহার, অপতথ্য ও সাইবার অপরাধের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে হবে। প্রযুক্তিকে আমরা ভাল কাজের জন্যই ব্যবহার নিশ্চিত করব, খারাপ উদ্দেশ্যে এর ব্যবহার প্রতিহত করব।’

আবুবকর হানিপ বলেন, ‘আজ আপনারা কেবল গ্র্যাজুয়েট হলেন তা নয়, একই সাথে অর্জন করলেন নেতৃত্ব, উদ্ভাবনী দক্ষতা ও পরির্তনের কৌশল; যা আপনাদের ভবিষ্যৎ চলার পথ প্রশস্ত করবে।’

শিক্ষার্থীদের কাছে জীবনের সংগ্রামের দিনগুলোকে সাফল্যের পথে নিয়ে যাওয়ার ব্যক্তিগত গল্প শোনান এ বাংলাদেশি আমেরিকান প্রযুক্তি শিক্ষা উদ্যোক্তা। তিনি জানান, দক্ষতা উন্নয়নে তার উদ্যোগ থেকে সুফল নিয়ে ২৫ হাজার মানুষ ও তাদের পরিবার আজ যুক্তরাষ্ট্রের মূল ধারায় তথা পুরো পৃথিবীতে তাদের জীবন মানে পরিবর্তন আনতে পেরেছেন।

ডব্লিউইউএসটির সিএফও ফারহানা হানিপ যুক্তরাষ্ট্রে তার নিজের চলার পথের চ্যালেঞ্জগুলোর কথা তুলে ধরে বলেন, ‘স্রেফ নিজের ওপর নিজের বিশ্বাস আর যে কোন বাধাকে সুযোগে পরিণত করার প্রচেষ্টাই আমার এ পথ সুগম করে দিয়েছে। নিজের প্রত্যাশা পূরণের সাথে মাতৃত্বের দায়িত্বকে সঠিক ভারসাম্যে পালন করার চেষ্টা করি।’

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন জর্জিয়ার স্টেট সিনেটর শেখ রহমান, ভার্জিনিয়ার স্টেট সিনেটর সাদ্দাম আজলান সেলিম, চীনের এইচডিডি গ্রুপের পরিচালক হুসেইন ভূঁইয়া, ফিনটেক ইকো সিস্টেম ডেভেলপমেন্টের কর্নধার সাইফুল খন্দকার, ডব্লউইউএসটির বোর্ড সদস্য সিদ্দিক শেখ, ডব্লিউইউএসটি স্কুল অব প্রফেশনালসের পরিচালক ও বোর্ড সদস্য মোহাম্মদ মাহদী-উজ-জামান ও অ্যাকসেনচুয়েটের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) ও বোর্ডের সদস্য নাসিরুল হক।

পরে শিক্ষার্থীদের হাতে একে একে তুলে দেয়া হয় তাদের ডিগ্রি। স্কুল অব আইটির ডিরেক্টর অধ্যাপক অ্যাপোসটোলস এলিওপোলস এবং স্কুল অব বিজনেসের ডিরেক্টর মার্ক রবিনসন নিজ নিজ স্কুলের গ্র্যাজুয়েটদের হাতে এ ডিগ্রি তুলে দেন।