সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪

শিরোনাম

সাবরাং ট্যুরিজম পার্কে র‌্যাংস প্রপার্টিজ ও মিরসরাই শিল্প নগরে বিএসআরএম জমি পেল

মঙ্গলবার, জুন ২০, ২০২৩

প্রিন্ট করুন

চট্টগ্রাম/ঢাকা: বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষ (বেজা) ও তিনটি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্প নগর ও সাবরাং ট্যুরিজম পার্কে মোট ১৫ একর জমি বরাদ্দে চুক্তি সই হয়েছে। মঙ্গলবার (২০ জুন) বেজার কার্যালয়ে এসব চুক্তি সই হয়। প্রতিষ্ঠানগুলা হল- ইস্তামেরিনা রিফুয়েলিং স্টেশন লিমিটেড, বাংলাদেশ এগ্রিকালচার প্রডাক্টস লিমিটেড ও র‌্যাংস প্রপার্টিজ লিমিটেড। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বেজার নির্বাহী চেয়ারম্যান শেখ ইউসুফ হারুন।

ইস্তামেরিনা রিফুয়েলিং স্টেশন হল নিট প্লাস লিমিটেডের সহযোগী সংস্থা। প্রতিষ্ঠানটি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্প নগরে দুই একর জমিতে দুই দশমিক ৯৭ মিলিয়ন মার্কিন ডলার বিনিয়োগে রিফুয়েলিং স্টেশন অফ সিএনজি, এলপিজি, অকটেন, পেট্রোল, ডিজেল, কার-ওয়াশিং ফ্যাসিলিটি, রেস্টুরেন্ট ও শপিং মল স্থাপন করবে। কম্পোসিট নিট গার্মেন্টসের স্বনামধন্য প্রতিষ্ঠান নিট প্লাস লিমিটেডের ১০০ শতাংশ রপ্তানী পণ্য উৎপাদন করে থাকে। অপর দিকে, বিএসআরএমের সহযোগী সংস্থা বাংলাদেশ এগ্রিকালচার প্রডাক্টস বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্প নগরে দশ একর জমিতে ১৪ দশমিক ৫৭ মিলিয়ন মার্কিন ডলার বিনিয়োগে কেশিও নাট ও কৃষি পণ্য প্রক্রিয়াজাতকরণ প্ল্যান্ট স্থাপন করবে। এতে প্রায় ৪০০ জনের কর্মসংস্থান হবে বলে আশা করা যাচ্ছে। স্টিল পণ্য উৎপাদনে শীর্ষস্থানীয় এ প্রতিষ্ঠান দীর্ঘ দিন থেকে সুনামের সাথে ব্যবসায় চালাচ্ছে। প্রতিষ্ঠানটি এর আগে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্প নগরে ১৪০ একর জমি লিজ নিয়েছে ও এখানে উন্নয়ন কার্যক্রম চলছে।

সাবরাং ট্যুরিজম পার্কে জমি বরাদ্দ পেয়েছে র‌্যাংস প্রপার্টিজ, যার‌্যানকন গ্রুপ অফ বাংলাদেশের একটি অঙ্গ প্রতিষ্ঠান। র‌্যানকন গ্রুপ বাংলাদেশের অন্যতম বৃহৎ শিল্প উদ্যোক্তা ও দেশে প্রায় ৩২টি শিল্প ইউনিট স্থাপন করেছে। র‌্যাংস প্রপার্টিজ মূলত রিয়েল এস্টেট জগতে সুপ্রসিদ্ধ নাম। সাবরাং ট্যুরিজম পার্কে প্রতিষ্ঠানটি দশ দশমিক ২৭ মিলিয়ন মার্কিন ডলার বিনিয়োগে তিন একর জমিতে হোটেল ও রিসোর্ট স্থাপন করবে। এতে প্রায় ৪০০ মানুষের কর্মসংস্থান হবে বলে আশা করা যাচ্ছে।

শেখ ইউসুফ হারুন উপস্থিত সব বিনিয়োগকারীকে অভিনন্দন জানিয়ে বলেন, ‘বেজা বাংলাদেশে বিনিয়োগ-বান্ধব সুস্থ পরিবেশ গড়ে তুলতে সমর্থ হয়েছে।’

তিনি উল্লেখ করেন, মিরসরাইতে দক্ষিণ এশিয়ার অন্যতম বৃহৎ অর্থনৈতিক অঞ্চল ও শিল্প নগর নির্মিত হচ্ছে। এর ফলে, এ দেশে শিল্পায়নের অভূতপূর্ব বিপ্লব সাধিত হবে ও জনগণের জীবনযাত্রার মান বৃদ্ধির পাশাপাশি টেকসই উন্নয়নের লক্ষ্যগুলা পূরণ হবে।

বিভিন্ন অর্থনৈতিক অঞ্চলের বর্তমান অবস্থা তুলে ধরে তিনি বলেন, ‘নতুন নতুন খাতে বিনিয়োগের ফলে শিল্পাঞ্চলসহ সব অর্থনৈতিক অঞ্চলের রপ্তানী বাজার আরো সমৃদ্ধ হবে।’

শেখ ইউসুফ উল্লেখ করেন, বিনিয়োগকারীদের যথাসময়ে সরকারের সব সংস্থার সেবা প্রদানে বেজা বদ্ধপরিকর ও সদা সতর্ক।’

তিনি আরো বলেন, ‘বেসরকারি অর্থনৈতিক অঞ্চল স্থাপনে বেজা সব সহযোগিতা করবে।’

বাংলাদেশ এগ্রিকালচার প্রডাক্টসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আমির আলীহুসেইন বলেন, ‘বিএসআরএম গ্রুপের সুনাম অক্ষুন্ন রেখে কৃষি পণ্য প্রক্রিয়াজাতকরণ প্ল্যান্টটি তারা স্থাপন করতে চলেছেন।’

তিনি বলেন, ‘মধ্যস্বত্ত্বভোগীদের হাত থেকে সরিয়ে নিয়ে এসে বাংলাদেশের কেশিওনাট কৃষকদের জীবনযাত্রার মান উন্নয়নে তার প্রতিষ্ঠান কাজ করবে।’

তিনি উল্লেখ করেন, বিএসআরএম দীর্ঘ দিন থেকেই কেশিওনাটের গুণগতমান বৃদ্ধি ও বাজার ব্যবস্থা পর্যবেক্ষণ করে আসছেন।’

তিনি আরো বলেন, ‘করপোরেট সোস্যাল রেসপন্সিবিলিটির ভাবধারা অক্ষুন্ন রেখে বিশ্ব বাজারে এ প্রক্রিয়াজাত বাদাম রপ্তানী করে রপ্তানী ক্ষেত্রে বৈচিত্র্য আনতে কাজ করছেন তারা।’

র‌্যাংস প্রপার্টিজের ডিভিশনাল ডিরেক্টর মাশিদ রহমান বলেন, ‘সাবরাং ট্যুরিজম পার্কে বেজার সাথে নতুন এ বিনিয়োগ-সম্পর্ক স্থাপন করতে পেরে তারা অত্যন্ত আনন্দিত।’

নয়নাভিরাম সাবরাংয়ে তারা দ্রুত কার্যক্রম শুরু করতে পারবেন বলে আশা প্রকাশ করেন।