শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪

শিরোনাম

সিএসইর কর্মকর্তাদের জন্য ‘অভিযোগ প্রতিকার ব্যবস্থা’ বিষয়ক কর্মশালা বিএসইসির

সোমবার, মে ২২, ২০২৩

প্রিন্ট করুন

চট্টগ্রাম: বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) অভিযোগ প্রতিকার ব্যবস্থা কমিটি চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জ পিএলসির (সিএসই) কর্মকর্তাদের জন্য ‘অভিযোগ প্রতিকার ব্যবস্থা’ বিষয়ক দুই দিনব্যাপী প্রশিক্ষণ কর্মশালা সম্পন্ন করেছে। সিএসইর চট্টগ্রামস্থ প্রধান কার্যালয়ে ২১-২২ মে এ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়।

এতে প্রধান অতিথি হিসিবে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বিএসইসির কমিশনার এবং এপিএ টিম লিডার মো. আব্দুল হালিম। বিশেষ অতিথি ছিলেন কমিশনের নির্বাহী পরিচালক ও আপিল কর্মকর্তা (অভিযোগ প্রতিকার ব্যবস্থা) মো. সাইফুর রহমান এবং সিএসইর ব্যবস্থাপনা পরিচালক (ভারপ্রাপ্ত) মো. গোলাম ফারুক। রিসোর্স পারসন ছিলেন সিডিবিএলের মহাব্যবস্থাপক রাকিবুল ইসলাম চৌধুরী।

মো. আব্দুল হালিম বলেন, ‘এ মডিউলের মাধ্যমে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তিরা তাদের অভিযোগ সরাসরি অনলাইনের মাধ্যমে দিতে পারেন। আমাদের টিম সে ক্ষেত্রে কেস টু কেস সমস্যা/অভিযোগকে সমাধানের উপায় বের করে ও দ্রুত সময়ে সমাধান করছে। এছাড়াও, আমাদেরকে গুরুত্বের সাথে কাজের ক্ষেত্রকে আরো সুস্পষ্ট করার জন্য কাজ করতে হবে ও যে অভিযোগগুলো ইতিমধ্যে আমরা পেয়েছি সেগুলোর সমাধানের সময় কমাতে হবে এবং একই সাথে ভবিষ্যতে এ ধরনের অভিযোগ যেন না আসে, সে ব্যাপারে অগ্রিম ব্যবস্থা নিতে হবে। আমাদেরকে নির্দিষ্ট লক্ষ্য নিয়ে কাজ করতে হবে ও মনে রাখতে হবে, সমস্যার উৎসকে চিহ্নিত করে তার সঠিক ও কার্যকরী দ্রুত সমাধানের ব্যবস্থা করাই হলে আমাদের কাজের লক্ষ্য। বিএসইসির জিআরএস টিম যারা দুই দিন ব্যাপী এ প্রশিক্ষণটি পরিচালনা করলেন ও আয়োজন করলেন এবং একই সাথে অভিযোগ সমাধানে যে আক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন, তাদেরকে আপানারা আরো বেশি সহযোগিতা করবেন।’

মো. গোলাম ফারুক বলেন, ‘অভিযোগ প্রতিকার ব্যবস্থা বা জিআরএস হল মূলত বিভিন্ন সরকারি দপ্তর কর্তৃক প্রদানকৃত সেবা নিশ্চিতকরণের একটি প্ল্যাটফর্ম। জিআরএস ব্যবস্থার অন্তর্ভুক্ত প্রতিটি দপ্তরে সরকারের একজন নাগরিক যে কোন সেবার বিরুদ্ধে তার অসন্তোষ বা ক্ষোভ জানিয়ে অভিযোগ দাখিল করতে পারেন। এটি সেবা প্রদানের উন্নতি, স্বচ্ছতা, উন্নত ও স্থানীয় পর্যায়ে সেবা প্রদানকারীদের মধ্যে জবাবদিহিতা বাড়ানোর উপায়গুলি চিহ্নিত করার জন্য ডিজাইন করা হয়েছে ৷ যখন একজন বিনিয়োগকারী বা আর্থিক ভোক্তা অসদাচরণ বা অবৈধ অনুশীলনের দ্বারা ক্ষতিগ্রস্ত হয়, তখন সমস্যাটির সমাধানের জন্য কার্যকর ব্যবস্থার অস্তিত্ব শুধুমাত্র সংক্ষুব্ধ ব্যক্তির জন্যই নয়, বাজারের শৃঙ্খলার উন্নতি ও আর্থিক বাজারে বিনিয়োগকারীদের আস্থা বৃদ্ধির মত ইতিবাচক বাহ্যিকতা তৈরি করার জন্যও গুরুত্বপূর্ণ।’

প্রশিক্ষণটিতে অংশগ্রহণকারীরা এ অভিযোগ প্রতিকার ব্যবস্থা বিষয়ক মডিউলের উপর সামগ্রিক পরিচালনা পদ্ধতি সম্পর্কে বিস্তারিত ধারণা পেয়েছেন। সিএসইর কর্মকর্তারা প্রশিক্ষণটিতে সক্রিয়ভাবে অংশ নেন ও ভবিষ্যতে এ মডিউলটি আরো উন্নত ও কার্যকরী করার জন্য তাদের মতামত দেন।