সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০২৪

শিরোনাম

সিলেটে পররাষ্ট্র মন্ত্রীর সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের পর্যবেক্ষক দলের সাক্ষাৎ

শনিবার, জানুয়ারী ৬, ২০২৪

প্রিন্ট করুন

সিলেট: সিলেটে পররাষ্ট্র মন্ত্রী একে আব্দুল মোমেনের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের পর্যবেক্ষক দল। শুক্রবার (৫ জানুয়ারি) রাতে সিলেট নগরীতে পররাষ্ট্র মন্ত্রীর বাস ভবন হাফিজ কমপ্লেক্সে যুক্তরাষ্ট্রের পর্যবেক্ষক দল সাক্ষাৎ করেন।

সাক্ষাৎকালে যুক্তরাষ্ট্রের পর্যবেক্ষক দলের সদস্যদের মধ্যে ছিলেন আইআরআইয়ের এশিয়া প্যাসিফিক অঞ্চলের সিনিয়র উপদেষ্টা জেওফ্রি ম্যাকডোনাল্ড, আইআরআইয়ের সিনিয়র প্রোগ্রাম ম্যানেজার অমিতাভ ঘোষ ও আইআরআইয়ের প্রোগ্রাম ম্যানেজার ডেভিড হোগস্ট্রা।

পরে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে একে আব্দুল মোমেন জানান, যুক্তরাষ্ট্রের পর্যবেক্ষক দলের সদস্যরা সাক্ষাৎকালে নির্বাচন নিয়ে কোন মন্তব্য করেনি। তারা তথ্য সংগ্রহ করছে। আগামীতে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির মধ্যে কিভাবে তিক্ততা কমানো যায়, বিএনপি কেন নির্বাচনে আসেনি – এ ব্যাপারে জানতে চেয়েছে পর্যবেক্ষক দল।

এ সময় সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের উত্তরে পররাষ্ট্র মন্ত্রী জানান, আসন্ন দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন পর্যবেক্ষনের জন্য পৃথিবীর না দেশের ২২৭ জন পর্যবেক্ষক ও অসংখ্য সাংবাদিক আসবে।

এ সময় পররাষ্ট্র মন্ত্রী নির্বাচন পর্যবেক্ষণকে ব্যক্তিগতভাবে অপছন্দ করেন জানিয়ে বলেন, ‘আমরা আমাদের ভোট দেব। জনগণ যেভাবে ভোট দিবে তাতেই আমি খুশি, জনগন ভোট না দিলে নাই। এটার সার্টিফিকেট বিদেশীদের কাছ থেকে কেন নিতে হবে। যুক্তরাষ্ট্র-ভারতের মত পৃথিবীর বহু দেশে নির্বাচনে পর্যবেক্ষক থাকে না।’

অপর এক প্রশ্নের উত্তরে পররাষ্ট্র মন্ত্রী বলেন, ‘ভিসানীতি নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র যদি তাদের কথায় ঠিক থাকে, তাহলে বিএনপি নেতাদের উপর ভিসা নীতি প্রয়োগ করা উচিত। কারণ, তারা নির্বাচন বানচাল করতে চাইছে ‘

তিনি আরো বলেন, ‘বর্তমান সময়ে দেশে বিএনপির জনপ্রিয়তা অনেকটা কমে গেছে। তারা সন্ত্রাসের পথ বেছে নিয়েছে। বিএনপির দাবি দুটি। একটি হল প্রধানমন্ত্রীর অপসারণ, দ্বিতীয়টি খালেদা জিয়াকে সাজা না দেয়া।’

খালেদা জিয়াকে জেলের সাজা সরকার দেয়নি মন্তব্য করে পররাষ্ট্র মন্ত্রী বলেন, ‘সরকারের পদত্যাগ কোন গণতান্ত্রিক সমাজে হয় না। এটা সামরিক শাসনে সম্ভব। নেতৃত্বে অপরিপক্কতার কারণে তারা বারে বারে নানা ইস্যু টেনে আনছে।’

নির্বাচন কমিশন এখন শক্তিশালী বলেই আওয়ামী লীগের নির্বাচনি প্রচারণার ব্যাপারে কড়াকড়ি করছে। একইভাবে বিএনপির ওপর সমানভাবে কড়াকড়ি আরোপ করা উচিত বলে মন্তব্যও করেন পররাষ্ট্র মন্ত্রী।