মঙ্গলবার, ০৫ মার্চ ২০২৪

শিরোনাম

সুর বদলে যুক্তরাষ্ট্র বলল ‘গাজা ফিলিস্তিনি ভূখণ্ড’

বুধবার, জানুয়ারী ৩, ২০২৪

প্রিন্ট করুন
ম্যাথিউ মিলার

ওয়াশিংটন ডিসি, যুক্তরাষ্ট্র: ফিলিস্তিনের স্বাধীনতাকামী গোষ্ঠী হামাসের সাথে যুদ্ধ শুরুর পর থেকেই ইসরাইলকে সমর্থন দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। এমনকি চলমান যুদ্ধের মধ্যেই সংহতি প্রকাশে ইসরাইল সফরে যান যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। এছাড়াও, যুদ্ধে ইসরাইলকে বিভিন্ন রকমের সামরিক সহায়তা দিয়ে আসলেও, আস্তে আস্তে নিজেদের অবস্থান পরিবর্তন করছে যুক্তরাষ্ট্র। এবার ‘গাজা ফিলিস্তিনের ভূখণ্ড’ বলে মন্তব্য করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দফতরের মুখপাত্র ম্যাথিউ মিলার।

প্রায় তিন মাস ধরে গাজায় হামলা চালিয়েও ক্ষান্ত হয়নি ইসরাইল। রোববার (৩১ ডিসেম্বর) ইসরাইলের আর্মি রেডিওতে কথা বলার সময় ইসরাইলের অর্থ মন্ত্রী বেজালেল স্মোট্রিচ ফিলিস্তিনিদের গাজা ছাড়ার আহ্বান জানান।

তিনি বলেন, ‘গাজা উপত্যকায় যা করা দরকার তা হল (ফিলিস্তিনিদের) দেশত্যাগকে উৎসাহিত করা। গাজায় ২০ লাখ আরব জনগোষ্ঠীর বদলে যদি মাত্র এক বা দুই লাখ আরব থাকেন, তাহলে পরের দিন থেকেই উপত্যকাটি নিয়ে আলোচনা সম্পূর্ণ ভিন্ন হবে।’

বেজালেল স্মোট্রিচ আরো বলেন, ‘গাজার ২৩ লাখ জনসংখ্যা যদি ইসরাইলকে ধ্বংস না করার আকাঙ্ক্ষায় বেড়ে ওঠে, তাহলে উপত্যকাটিকে ভিন্নভাবে দেখবে ইসরাইল।’

ইসরাইলের অর্থ মন্ত্রীর এই মন্তব্যকে ‘দায়িত্বজ্ঞানহীন’ ও ‘উত্তেজনামূলক’ আখ্যা দিয়ে প্রত্যাখান করেছে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দফতর। যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দফতরের মুখপাত্র ম্যাথিউ মিলার বলেছেন, ‘গাজা থেকে ফিলিস্তিনিদের গণহারে বাস্তুচ্যুত করা যাবে না।’

তিনি বলেছেন, ‘আমরা স্পষ্ট ও স্বচ্ছভাবে বলছি, গাজা ফিলিস্তিনের ভূখণ্ড আর ফিলিস্তিনেরই থাকবে। ভবিষ্যতে হামাস গাজাকে নিয়ন্ত্রণ করবে না, আর ইসরাইলেও কোন সন্ত্রাসী গোষ্ঠী হামলা চালাতে পারবে না।’

মিলার আরো বলেন, ‘ইসরাইলি, ফিলিস্তিনি, পার্শ্ববর্তী অঞ্চল ও পৃথিবীর স্বার্থে আমরা এমনই এক ভবিষ্যতের প্রত্যাশা করছি।’